মানিকগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় নারীর মৃত্যু

মানিকগঞ্জ সেন্ট্রাল স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিৎিসা নিতে এসে লাশ হয়ে বাড়ী ফিরলো সিংগাইর উপজেলার জামশা গ্রামের এক নারী। জানা গেছে, গত ১৬ জুন বিকেল তিনটার দিকে সিংগাইর উপজেলার জামসা গ্রামের মৃত হারিজুলের স্ত্রী চায়না বেগম (৩৬) দালালের মাধমে মানিকগঞ্জ ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতাল গেটের বিপরীতে অবস্থিত সেন্ট্রাল স্পেশালাইজড প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আসেন।

রোগীর বোন জামাই আওলাদ হোসেন জানান, জরায়ুতে টিউমার জনিত সমস্যা নিয়ে সেন্ট্রাল হাসপাতালে নিয়ে আসি। তার পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তড়িঘড়ি করে অপারেশন (ওটি) রুমে নিয়ে গেলে রাত পৌনে আটটার দিকে ওটি থেকে বের হয়ে ডা: রুমা জানান, আপনাদের রোগীর অবস্থা ভাল না। অক্সিজেন কমে গেছে।

সাভারে সুপার ক্লিনিকে নিয়ে যান। সেখানে গিয়ে কালাম নামের এক লোক আছে। তাকে ফোনে ধরিয়ে দিয়েন। আমি বলে দিবো। সেন্ট্রাল হাসপাতাল কর্তপক্ষ’র ভাড়া করা এ্যাম্বুলেন্স যোগে সাভার যাওয়া পথে সন্দেহ হলে চায়নাকে ধামরাই উপজেলার আলাদিন নামক একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে নিয়ে যাই। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা বলেন রোগী বেঁচে নেই।

পরে রাত পৌনে এগারোটার দিকে চায়নাকে নিয়ে সেন্ট্রাল হাসপাতালে ফেরৎ এসে দেখি গেট তালা। গেটের বাইরে থেকে বার বার ডাকাডাকি করা হলেও কর্র্র্তৃপক্ষের কেউ গেট খোলেননি। বাধ্য হয়ে চায়নাকে নিয়ে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। চায়নাকে ভুল অপারেশন করে মেরে ফেলা হয়েছে এ ঘটনার জন্য সেন্ট্রাল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে দ্বায়ী করে তিনি বলেন আমরা এই অপচিকিৎসার বিচার চাই।

সেন্ট্রাল স্পেশালাইজড হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচাল জালাল উদ্দিন বলেন, আমি হাসপাতালে ছিলাম না। ঘটনাটি শুনেছি মাত্র। ডা: রুমা বলেন, বিকেল তিনটার দিকে চায়নাকে ওটিতে ঢুকাই। ডা: ফয়সাল তাকে অ্যানেস্থেসিয়া করেন। জরায়ুর টিউমার অপারেশনের শেষে রোগীর অক্সিজেন ও প্রেসার কমে যায়। রাত পৌনে আটটার দিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সাভারের সুপার ক্লিনিকে রেফার্ড করি।

এ বিষয়ে সিভিল সার্জন ডা: মোয়াজ্জেম আলী খান চৌধুরী বলেন, ঘটনাটি আপনার মুখে শুনলাম। এই বিষয়ে রোগীর আত্মীয়-স্বজন কিংবা অন্য কোন সোর্স আমাকে জানায়নি। খোজ নিয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

সজল/বার্তাবাজার/এম.এম

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর