১৪, ডিসেম্বর, ২০১৮, শুক্রবার | | ৫ রবিউস সানি ১৪৪০

গণমাধ্যম একজন অভিভাবক হারাল

আপডেট: আগস্ট ১৪, ২০১৮

গণমাধ্যম একজন অভিভাবক হারাল

বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমের প্রবাদ পুরুষ প্রবীণ সাংবাদিক গোলাম সারওয়ার আর নেই। সোমবার রাতে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। বাংলাদেশ সময় ৯ টা ২৫ মিনিটে তিনি মারা যান। বিএফইউজের সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল এ খবর নিশ্চিত করেছেন। স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়ে এবং অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন গোলাম সারওয়ার।

এর আগে বিকেলে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) চিকিৎসাধীন গোলাম সারওয়ারকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়।

গত ২৯ জুলাই মধ্যরাতে দেশবরেণ্য সাংবাদিক, সম্পাদক পরিষদের সভাপতি গোলাম সারওয়ার রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি হন। গত ৩ আগস্ট মধ্যরাতে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে তাকে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয়। পরদিন সকালে তাকে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসার কিছুটা উন্নতিও হয়েছিল। নিউমোনিয়া সংক্রমণ হ্রাসের পাশাপাশি ফুসফুসে জমে থাকা পানিও কমে গিয়েছিল। হার্টও স্বাভাবিকভাবে কাজ করছিল। কিন্তু গত রোববার অবস্থার অবনতি হয়। কিডনিও স্বাভাবিকভাবে কাজ করছিল না। এ অবস্থায় সোমবার বিকেলে তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়।

বাংলাদেশে সাংবাদিকতার উজ্জ্বল এক নক্ষত্র তিনি। মুক্তচিন্তা, প্রগতিশীল মূল্যবোধ আর মহান মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে সোচ্চার ছিলেন সর্বদা। মানুষটি দেশের সাংবাদিকতা জগতের প্রতিষ্ঠানতুল্য ব্যক্তিত্ব। ষাটের দশকে পথচলা শুরু। সেই থেকে টানা পাঁচ দশকের বেশি সময় তিনি এই পেশায় মেধা, যুক্তিবোধ, পেশাদারিত্ব, দায়িত্বশীলতা, অসাম্প্রদায়িক চিন্তা চেতনার নিরবচ্ছিন্ন চর্চায় নিজেকে এবং বাংলাদেশের সংবাদপত্রকে অনন্য উচ্চতায় প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

প্রতিষ্ঠান হিসেবে দৈনিক ইত্তেফাকে দীর্ঘ ২৭ বছর বার্তা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।কৃতিত্বের ধারাবাহিকতায় ১৯৯৯ সালে সম্পাদক হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেন যুগান্তর। ছয় বছর পর ২০০৫ সালে আরেকটি নতুন দৈনিক সমকালের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদকের দায়িত্ব গ্রহণ করেন তিনি। মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিক গোলাম সারওয়ার সাংবাদিকতায় অনন্য অবদানের জন্য ২০১৪ সালে একুশে পদকে ভূষিত হন।

১৯৪৩ সালের ১ এপ্রিল বরিশালের বানারীপাড়ায় গোলাম সারওয়ার জন্ম গ্রহণ করেন। বাবা মরহুম গোলাম কুদ্দুস মোল্লা ও মা মরহুমা সিতারা বেগমের জ্যেষ্ঠ সন্তান তিনি। ১৯৬২ সালে চট্টগ্রামের দৈনিক আজাদী পত্রিকার মাধ্যমে তাঁর সাংবাদিকতা পেশার সূচনা। যুগান্তর ও সমকালের আগে তিনি সংবাদ ও ইত্তেফাকে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন।

তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশে গণমাধ্যমের অন্যতম অভিভাবক প্রবীণ সাংবাদিক গোলাম সারওয়ারের মৃত্যুতে বাংলা ইনসাইডার পরিবারও গভীরভাবে শোকাহত।