মির্জাপুরে এমপি হলেন নৌকার শুভ

টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসনের উপ-নির্বাচনের বেসরকারি ফলাফলে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত (নৌকা) প্রতীকের প্রার্থী খান আহম্মেদ শুভ। তিনি ভোট পেয়েছেন ১ লাখ ৪ হাজার ৫৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী জহিরুল ইসলাম জহির পেয়েছেন ১৬ হাজার ৭৭৩ ভোট।

নির্বাচন শেষে ফলাফল ঘোষণা করেন আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও টাঙ্গাইল-৭ শূন্য আসন নির্বাচনের রির্টানিং কর্মকর্তা শাহেদুন্নবী চৌধুরী।

অপর তিন প্রতিদ্বন্দ্বির মধ্যে হাতুরী প্রতীকের বাংলাদেশ ওয়ার্কাস পার্টির প্রার্থী গোলাম নওজব চৌধুরী পেয়েছেন ১ হাজার ৪৫ ভোট, ডাব প্রতীকের বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির রুপা রায় চৌধুরী পেয়েছেন ৪৩৮ ভোট আর মোটরগাড়ী প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল ইসলাম নুরু পান ২ হাজার ৪৩৬ ভোট।

এর আগে রোববার (১৬ জানুযারি) প্রথমবারের মতো ইভিএমের মাধ্যমে এই আসনের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল ৮টা থেকে বিরতিহীনভাবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলে ভোট গ্রহণ। এই উপনির্বাচনে পাঁচজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, একটি পৌরসভা এবং ১৪টি ইউনিয়ন নিয়ে টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসন গঠিত। উপজেলার ১২১টি কেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। মির্জাপুর পৌরসভা ও ১৪ ইউনিয়নে মোট ভোটার ৩ লাখ ৪০ হাজার ৩৭৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৭০ হাজার ৫০১ এবং নারী ভোটার ১ লাখ ৬৯ হাজার ৮৭৭ জন।

উপনির্বাচন সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণ করতে নির্বাচনী এলাকায় একজন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ৮ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ৪ প্লাটুন বিজিবি, ৮১০ জন পুলিশ সদস্য ও ১০টি র‌্যাবের মোবাইল টিমসহ পর্যাপ্ত সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়াও প্রায় সাড়ে ১৮শ’ আনসার সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত (১৬ নভেম্বর) এ আসনের সংসদ সদস্য একাব্বর হোসেন মারা গেলে আসনটি শুন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনে ৭ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন।

হাসান/বার্তাবাজার/এ.আর

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর