দুই তরুণের প্রযুক্তিভিত্তিক সফল উদ্যোগ

উদ্যোক্তা বাজার

নিজের প্রয়োজনে ডোমেইন ও হোস্টিং কিনতে গিয়ে মাছুমুল হক নামের এক তরুণ দেখলেন তার নিজের কোনো ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ড নেই। তাই দ্বারস্থ হলেন বিদেশে থাকা এক ভাইয়ের। এরপর চালু করলেন ভ্রমণবিষয়ক একটি ওয়েবসাইট।

পরবর্তীতে তিনি দেখলেন পরিচিত অনেকেই তাকে ডোমেইন ও হোস্টিং কিনে দেয়ার অনুরোধ করছেন। এক সময় সংখ্যাটা এত বেশি হল যে তিনি নিজেই ‘স্কাইহোস্ট বিডি’ নামের ডোমেইন-হোস্টিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান চালু করে ফেলেন।

সালেহ আহমেদ নামের আরেক তরুণের শুরুটাও হয়েছিল প্রায় একইভাবে। ইচ্ছা ছিল পড়বেন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে। কিন্তু সুযোগ না পেয়ে পড়তে হল সমাজবিজ্ঞানে। তবে হাল ছাড়লেন না।

বিভিন্ন ওয়েবসাইট ঘেঁটে ওয়েবসাইট তৈরির বিভিন্ন কৌশল রপ্ত করতে শুরু করলেন। নিজের একটি ওয়েবসাইটও দাঁড় করালেন তিনি যা দেখে অনেকেই তাকে অনুরোধ করতেন ওয়েবসাইট তৈরি করে দেয়ার জন্য।

২০০৯ সালের শেষের দিকে দেশের বাইরে থেকে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে দেয়ার কাজ পান সালেহ। এরপর চালু করে ফেলেন নিজের ডোমেইন হোস্টিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ‘অবসর ডটকম’।

তবে প্রথমদিকে এ বিষয়ে খুব বেশি ধারণা না থাকার কারণে তাকে ধাক্কাও খেতে হয়েছিল। এখান থেকে শিক্ষা নিয়ে নতুন করে আবার শুরু করেন সালেহ। অনলাইনে পরিচয়ের সুবাদে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে মাছুমুল হক এবং সালেহ আহমেদের মাঝে।

তখন তারা চিন্তা করলেন আলাদা আলাদা ব্যবসা করার চেয়ে দু’জন যদি একসঙ্গে কাজ করেন তাহলে তাদের স্বপ্ন আরও এগিয়ে নেয়া সম্ভব হবে। এমন ভাবনা থেকেই ২০১২ সালে দুই প্রতিষ্ঠানকে একীভূত করে তারা চালু করেন ‘হোস্ট পেয়ার’।

গ্রাহকবান্ধব সেবা দেয়ার মাধ্যমে অল্প সময়ের মধ্যে দেশের গণ্ডি পেরিয়ে দেশের বাইরেও তাদের প্রতিষ্ঠান বেশ পরিচিতি পেতে শুরু করল। এরপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। ২০১৭ সালের শুরুর দিকে ট্রেডমার্ক জটিলতার কারণে হোস্টপেয়ারের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় ‘এক্সনহোস্ট’।

বর্তমানে এ নামেই সেবা দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। সাধারণত দু’জন মিলে কোনো ব্যবসা করতে গেলে অনেক ক্ষেত্রেই পারস্পরিক দ্বন্দ্ব তৈরি হয়। এ বিষয়ে সালেহ আহমেদ বলেন, আমরা যে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে দু’জন মিলেই আলোচনা করে নিই। তা ছাড়া কাজ ভাগ করে নেয়ার কারণে কোনো সমস্যা হয় না।