জাতিসংঘের জঙ্গি তালিকায় পাকিস্তানের মাসুদ আজাহার

জঙ্গি গোষ্ঠী জইশ-ই-মোহাম্মদ নেতা মাসুদ আজাহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। তাকে আন্তজার্তিক জঙ্গি ঘোষণার ক্ষেত্রে চীন তাদের আপত্তি তুলে নেয়ায় পাকিস্তানের এই জঙ্গিকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি হিসাবে তালিকাভুক্ত করা সম্ভব হলো। ফলে জাতিসংঘের এই পদক্ষেপকে বড় ধরনের কূটনৈতিক সফলতা হিসেবে দেখছে ভারত।

গত ফেব্রুয়ারিতে জম্মু কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সিআরপিএফের ক্যাম্পে হামলা চালিয়ে ৪০ জনভারতীয় জওয়ানকে হত্যা করার নেপথ্যে ছিল মাসুদের দল এই জইশ-ই-মোহাম্মদ। এরপরই তাকে জঙ্গি তালিকাভুক্ত করতে জোর প্রচেষ্টা চালায় ভারত। যদিও ১৯৯৯ সাল থেকেই এই চেষ্টা চালিয়ে আসছিলো ভারত।

কিন্তু এতদিন নিরাপত্তা পরিষদের অন্যতম সদস্য চীনের আপত্তির কারণে তাদের সে চেষ্টা সফল হয়নি। কিন্তু চীনের অবস্থান বদলাতেদেশটির ওপর ভারতের পাশাপাশি চাপ বাড়িয়েছিলো যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও ফ্রান্স। যার ফলে বেইজিং তাদের দীর্ঘদিনের আপত্তি থেকে সরে আসে এবং অবশেষে ভারতের প্রচেষ্টা সফল হয়। মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি হিসেবে তালিকাভুক্ত করে জাতিসংঘ।

বুধবার জাতিসংঘের ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তের কথা টুইট করে জানান সেখানে নিযুক্ত ভারতের প্রতিনিধি সৈয়দ আকবরউদ্দিন। তিনি বলেন, ‘বড় ছোটো সবাই একসঙ্গে। জাতিসংঘের তালিকায় আন্তর্জাতিক জঙ্গি মাসুদ আজাহার। সমর্থনের জন্য সবার কাছে কৃতজ্ঞ।’

জাতিসংঘের এই পদক্ষেপের ফলে মাসুদ আজাহারের সমস্ত অর্থ সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হবে। তার বিদেশ ভ্রমণের ওপরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে।

জাতিসংঘের এই নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়ন করা হবে বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে পাকিস্তান। যদিও এ নিয়ে তারা জম্মু-কাশ্মীরের ওপর ভারতীয় নির্যাতনের প্রসঙ্গ টেনে বলেছে, কেবল জইস-ই- মোহাম্মদ নয়, পৃথিবীর বুক থেকে সব ধরনের সন্ত্রাস উচ্ছেদ করা উচিত। পাকিস্তান সব ধরনের সন্ত্রাসের বিপক্ষে।

এদিকে জাতিসংঘের এই পদক্ষেপের ফলে ভারতের চলমান লোকসভা নির্বাচনে মোদির দল বিজেপি বড় ধরনের সফলতা পেতে পারে বলে ধারণা করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। বুধবারই এ নিয়ে প্রচার শুরু করেছেন মোদি এবং একে তিনি তার সরকারের বড় সফলতা হিসেবে দাবিও করেছেন।

রাজস্থানের জনসভায় বলেন, ‘বালাকোট অভিযানের দিনও আমি রাজস্থানে ছিলাম। আজও বড় খবর নিয়ে এসেছি।’

বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ টুইট করেন, ‘এই জন্যেই শক্তিশালী নেতার প্রয়োজন। এটা সন্ত্রাসের প্রতি মোদির‘জ়িরো টলারেন্স’নীতির ফসল।’

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর