২২, ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ৬ জমাদিউস সানি ১৪৩৯

স্টাম্প মাইকে ধরা পড়ল কোহলির স্লেজিং

আপডেট: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১১:০০ পিএম

স্টাম্প মাইকে ধরা পড়ল কোহলির স্লেজিং



অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ এদের ব্যাট-বল ছাড়াও আরেকটি অস্ত্র স্লেজিং৷ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বাকি ক্রিকেটবিশ্বকে দেখিয়েছিলেন পাল্টা স্লেজিং কাকে বলে৷ সেই থেকে ভারতীয় দলের বেশ কয়েকজন তারকা, বিশেষ করে ক্লোজ ইন ফিল্ডারদের কাঁধে দায়িত্ব থাকে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের স্লেজিংয়ের৷ চেতেশ্বর পূজারা, মুরলী বিজয়, অজিঙ্কা রাহানেরা নিজেরাই স্বীকার করে নিয়েছেন, তারা স্লেজিং বিষয়টা উপভোগ করেন৷




ক্রিকেটার হিসেবে বিরাট কোহলি
বরাবরই আগ্রাসী মেজাজের৷ নেতৃত্বের দায়ভার হাতে নিয়েও ধোনির মতো ক্যাপ্টেন কুল মানসিকতা থেকে দূরে থেকেছেন বিরাট৷ বরং স্বভাবসিদ্ধ আগ্রাসন এখনও চোখে পড়ে কোহলির মধ্যে৷ চিরপরিচিত সেই ঔদ্ধত্য থেকেই স্লেজিং করতে পিছপা হন না ভারত অধিনায়ক৷ সেন্ট জর্জেস পার্কে চোখে পড়ল এমনই টুকরো মুহূর্ত৷ বরং বলা ভাল স্ট্যাম্প মাইকে ধরা পড়ল বিরাটের মিস্টি কথার স্লেজিং৷




আরসিবি-র সতীর্থ তাবরাইজ শামসি যখন ব্যাট করতে নামেন, কোহলি তাকে সতর্ক করার ছলে ভয় দেখানোর চেষ্টা করেন৷ পিচের বাউন্স ব্যবহার করে ভারতীয় বোলাররা যখন প্রোটিয়া ব্যাটিং লাইনআপে ভাঙন ধরিয়েছেন, ঠিক সেই সময় কোহলি শামসিকে জিজ্ঞাসা করেন তিনি চেস্ট গার্ড নিয়ে ব্যাট করতে নেমেছেন কি না৷

কোহলি বলেন, ‘চেস্ট প্যাড শাম্মো (শামসি), তুমি কি চেস্ট প্যাড পরেছ?’ শামসি কোনো উত্তর না দিলেও প্রথম বলেই কুলদীপকে তুলে মারতে গিয়ে আউট হন৷ কোহলির স্লেজিং প্রোটিয়া তারকাকে অযথা ঝুঁকি নিতে প্ররোচিত করেছিল কি না, তা নিয়ে গবেষণার অবকাশ থেকে যায় বৈকি৷ ভারত অবশ্য ৭৩ রানে ম্যাচ জিতে প্রথমবারের মতো দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে দ্বি-পাক্ষিক কোনও সিরিজ জয় নিশ্চিত করে৷