২৩, ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, শুক্রবার | | ৭ জমাদিউস সানি ১৪৩৯

প্রথম শ্রেণীর ছাত্রীকে বৃদ্ধ শিক্ষকের ধর্ষণ চেষ্টা!

আপডেট: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১১:০৮ পিএম

প্রথম শ্রেণীর ছাত্রীকে বৃদ্ধ শিক্ষকের ধর্ষণ চেষ্টা!
মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার উমেতপুর গ্রামে স্কুলছাত্রীকে এক অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক পটু গুহ (৬০) বিস্কুট দেয়ার কথা বলে কলা বাগানে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। 
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উমেতপুর ইউনিয়নের উমেতপুর গ্রামের নুরুল আমীন ডিগ্রি কলেজের পাশে একটি কলা বাগানে ঐ স্কুল ছাত্রীকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে উমেতপুর গার্লস স্কুলের অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক পটু গুহ।  এ সময় স্কুল ছাত্রীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে শিশুটিকে উদ্ধার করে শিবচর উপজেলা
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।  শিশুটি উমেতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণির ছাত্রী।  গার্লস স্কুলের সাবেক ঐ শিক্ষক ঘটনার সাথে সাথেই ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।  পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। 


এ ব্যাপারে শিবচর থানায় একটি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।  একটি প্রভাবশালী মহল বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। 
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন স্থানীয় লোক জানায়, অবসরপ্রাপ্ত ও বয়স্ক একজন স্কুল শিক্ষক এত ছোট একটি শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করে যা খুবই দুঃখ জনক।  শিশুটির গোপন অঙ্গ দিয়ে রক্ত ঝরছিল।  আমরা এলাকাবাসী ঐ শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই। 
শিশুটির মা বলেন, সকালে আমার মেয়েকে বিস্কুটের লোভ দেখিয়ে কলাবাগানে নিয়ে নির্যাতন করে এক শিক্ষক।  আমি নির্যাতনের দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই। 




শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক আবু জাফর বলেন, সকালে শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।  শিশুটি বেশ ছোট।  ধর্ষণ হয়েছে কীনা তা পরীক্ষার মাধ্যমে বোঝা যাবে।  তাই আমরা শিশুটিকে মেডিকেল পরীক্ষা করার জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেছি। 




সহকারী পুলিশ সুপার (শিবচর সার্কেল) আনোয়ার হোসেন ভুইঞা বলেন, ঘটনা শোনার পরেই আমি ঐ এলাকায় গিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি।  শিশুটির ফরেনসিক রিপোর্টের জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।  ধর্ষক অবসর প্রাপ্ত স্কুল শিক্ষক বর্তমানে পলাতক রয়েছে।  তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।