২৩, ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, শুক্রবার | | ৭ জমাদিউস সানি ১৪৩৯

ইসলামের দাওয়াত দিতে ইংল্যান্ডে পাড়ি দিলেন অনন্ত জলিল

আপডেট: ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১১:৪০ পিএম

ইসলামের দাওয়াত দিতে ইংল্যান্ডে পাড়ি দিলেন অনন্ত জলিল



আবারও ইসলামের দাওয়া দিতে দেখা গেলো বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেতা অনন্ত জলিলকে।  এবার তিনি ইসলামের দাওয়াত দিতে ভাই মুফতি ওসামাকে সঙ্গে নিয়ে পাড়ি দিলেন সুদূর ইল্যাংন্ড। 




এ বিষয়টি শেয়ার করতে অনন্ত গতকাল নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে লিখেছেন, ‘বন্ধুগন, আসসালামু আলাকুম।  আজ পর্যন্ত ইসলামের দাওয়াত দেয়ার জন্য দেশের বিভিন্ন স্থানে গিয়েছি।  তবে এবার ইসলামের দাওয়াত দিতে মুফতি ওসামা ভাই ও আমি যাচ্ছি ইংল্যান্ডে। ’




‘আজ সেই
উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছি।  ইনশাআল্লাহ্ আগামীকাল ৫ ফেব্রুয়ারি এশা এর পর কোরআন ও হাদিস থেকে আল্লাহ ও রাসুলের কথা হবে ম্যাঞ্চেস্টার এর সিটি জামে মসজিদ M12 4DT , ৬ তারিখ মাগরিবের পর মার্কাজি মসজিদ ডিউস ভ্যালি এবং ৮ তারিখে মাগরিবের পর ইস্ট লন্ডন মার্কাজি মসজিদে। ’




‘উল্লেখিত সময়ে আমি ও মুফতি ওসামা ভাই উপস্থিত থাকবো।  আশাকরি যে মসজিদ আপনাদের নিকটে কাছে হয় আপনারা অবশ্যই আসবেন।  এবং আমাদের সবারই মরতে হবে, আর যতটুকু সময় পাই আমাদেরকে আল্লাহ্ তায়ালা পাঠিয়েছে ইবাদত করতে।  তারপরও আমরা দুনিয়ার কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকি।  কিন্তু আমাদের পাচঁ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতে হবে। ’




‘এবং আল্লাহ্ রাসুলের, রাসুলের যেই তাবলীগ ছিলো, রাসুল পৃথিবী থেকে পর্দা নেয়ার পরে যেই সাহাবীরা করে গেছেন এবং সেই দায়িত্ব আপনার এবং আমাদের উপর।  এখন আমাদের ডিউটি হচ্ছে মানুষকে দাওয়াত দেয়া।  আশাকরি লন্ডনে বসবাসকারী সকলেই আসবেন, অনেক ফায়দা হবে।  ইনশাআল্লাহ্ আমার জন্য দোয়া করবেন।  ভালো থাকবেন।  খোদা হাফেজ। ’




তিনি ভক্তদের উদ্দেশে বলেছেন, ‘আসসালামু আলাইকুম, ইংল্যান্ডের ভাই-বোনেরা।  আমি অনন্ত জলিল, মুফতি ওসামা হলেন আমার ভাই।  আমি আর আমার ভাই আজ ইংল্যান্ডের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হচ্ছি। ’




‘আগামীকাল ৫ ফেব্রুয়ারি এশারের নামাজের পর কোরআন ও হাদিস থেকে আল্লাহ্ ও রাসূলের কথা হবে। ’ এছাড়া তিনি বলেন, ‘আগামী ৬ ও ৮ তারিখ মাগরিফের পরও কোরআন হাদিসের কথা হবে।  আপনারা সবাই আসবেন।  আমাদের দায়িত্ব হলো অন্যের কাছে ইসলামের দাওয়াত দেওয়া। ’




উল্লেখ্য, ২০১০ সালে ‘খোঁজ-দ্যা সার্চ’ সিনেমার মাধ্যমে ঢালিউডের চলচ্চিত্রে পদার্পণ করেন অনন্ত জলিল।  তিনি মূলত একজন গার্মেন্টস ব্যবসায়ী।  তিনি গার্মেন্টস ব্যবসার পাশাপাশি চলচ্চিত্র ব্যবসায় বিনিয়োগ করেন, নিজের প্রযোজনা সংস্থার মাধ্যমে।  কিন্ত হঠাৎ একদিন তাকে দেখা গেলো তিনি ইসলামের দাওয়াত দিতে। 




এছাড়া একদম নতুনরুপে ভক্তদের মাঝে হন অনন্ত জলিল।  অভিনয় ও ব্যবসার পাশাপাশি তাকে বিভিন্ন সাংসাজিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করতে দেখা গেছে।  তিনি ইতোমধ্যে তিনি সামাজিক কর্মকাণ্ডের অংশ হিসেবে ৩টি এতিমখানা নির্মাণ করেছেন।