২১, এপ্রিল, ২০১৮, শনিবার | | ৫ শা'বান ১৪৩৯

ঢাবির প্রশ্নফাঁসে জড়িত রাবির দুই শিক্ষার্থী

আপডেট: ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৫:৩০ পিএম

ঢাবির প্রশ্নফাঁসে জড়িত রাবির দুই শিক্ষার্থী
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) দুই  শিক্ষার্থী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্ন জালিয়াতি চক্রের সঙ্গে জড়িত বলে জানা গেছে। 

গত ৭-৯ ডিসেম্বর রাজশাহী মেডিকেল এলাকা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী বনি আমিন ইসরাঈল (২৩) ও বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিনোদপুর এলাকা থেকে নৃ-বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মারুফ হোসেন পাভেলকে (২৪) গ্রেফতার করা হয়।  তারা দুইজনই চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ও পরস্পর বন্ধু। 

বনি আমিন ইসরাঈল বিশ্ববিদ্যালয়ের মাদার
বক্স হলের ২৩৫ নম্বর কক্ষে থাকেন বলে জানান তার সহপাঠী মাসুদ রানা।  তিনি বলেন, ‘গত শুক্রবার থেকে বনি হল থেকে নিখোঁজ রয়েছেন।  এখন পর্যন্ত তার কোন খোঁজ পাইনি। ’ এদিকে মারুফ বিনোদপুর এলাকার একটি মেসে থাকতেন বলে জানান তার সহপাঠী রাতুল জোয়ারদার।  তিনি বলেন, ‘৩-৪ দিন থেকে মারুফের কোন খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।  বুধবার আমাদের খেলা ছিল, সেখানেও সে আসেনি।  মারুফের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় যোগাযোগ করতে পারছি না। ’

বৃহস্পতিবার ঢাকার সিআইডি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইম বিভাগের বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্লা নজরুল ইসলাম এ তথ্য জানিয়েছেন।  তিনি জানান, ‘বনি ইসরাঈল এবং মারুফের কাজ ছিল ভর্তিচ্ছু ছাত্র সংগ্রহ এবং তাদের তথ্য চক্রের নেতা রকিবুল হাসান ইসামীকে সরবরাহ করা।  এই চক্রের শীর্ষে থাকা পাবনা জেলা ক্রীড়া কর্মকর্তা রকিবুল হাসান ইসামীকে গত ১১ ডিসেম্বর গ্রেফতার করা হয়। ’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘আমি তখন রাজশাহীতে ছিলাম না।  সহকারী প্রক্টর আমাকে বিষয়টি জানিয়েছিলো।  শুনেছি ঢাকায় ওই দুজন ঢাবির প্রশ্ন ফাঁসে জড়িত এবং তাদের নামে মামলা হয়েছে। ’

জানতে চাইলে মতিহার থানার ওসি মেহেদী হাসান বলেন, ‘সিআইডি একটি অভিযান চালিয়েছে বলে শুনেছি।  তবে কাউকে আটক করেছে কিনা তা জানি না। ’

এ বিষয়ে রাজশাহীর সিআইডি পরিদর্শক আসমাউল হক বলেন, ‘ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় জড়িতদের ধরতে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।  তবে কাদের আটক করা হয়েছে আমি জানি না।  আর তখন আমি রাজশাহীতে ছিলাম না। ’