২২, জানুয়ারী, ২০১৮, সোমবার | | ৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯

শিরোনাম ভারতে ট্রেনে বাংলাদেশি নারীর শ্লীলতাহানি করল বিএসএফ জওয়ান সৈয়দপুর বিমানবন্দরে যাত্রা শুরু করল রিজেন্ট এয়ারওয়েজ প্রতিদিন চলবে দুটি বিশ্বরেকর্ড গড়তে তামিমের প্রয়োজন মাত্র ৪২ রান! উল্লাপাড়ায় গৃহবধূ কে জোরপূর্বক ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগ আইপিএলে এখন পর্যন্ত মাশরাফিকে ছাড়াতে পারেনি কোনো বাংলাদেশী! ওয়ালটন মিডিয়া কাপ ব্যাডমিন্টন ফেব্রুয়ারিতে রাজধানীর মিরপুরে মাদকের ছড়াছড়ি বিষের বোতল হাতে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে কলেজছাত্রীর অনশন মানবতার দৃষ্টান্ত রাখলেন সিরাজদিখান উপজেলা চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন আহমেদ বিসিএলে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড খুলনায়

‘টারজান: দ্য ওয়ান্ডার কার’ ছবির গাড়িটির এখন কী অবস্থা?

আপডেট: ০৯ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৮:৩৬ এএম

‘টারজান: দ্য ওয়ান্ডার কার’ ছবির গাড়িটির এখন কী অবস্থা?

দুর্দান্ত সব গাড়ি হোক কিংবা বাইক, বলিউডে বরাবরই এই সমস্ত কিছু নিয়ে সিনেমা হয়েছে।  এবং সেগুলি জনপ্রিয় হয়েছে অতি অল্প সময়ে।  যেমন- জন আব্রাহাম অভিনীত ‘ধুম’-এর মুক্তির পর মোটরবাইক নিয়ে উৎসাহ যেমন অনেকটাই বেড়ে গিয়েছিল, তেমনি রোহিত শেট্টির ‘গোলমাল’ সিনেমার পর গাড়ি নিয়ে উন্মাদনা দেখা গিয়েছিল।  তবে এই প্রথম নয়, ২০০৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘টারজান: দ্য ওয়ান্ডার কার’ সিনেমার পরও এরকমই একটি গাড়ি নিয়ে উন্মাদনা লক্ষ্য করা গিয়েছিল।  নিশ্চয়ই মনে আছে 


ভুতূড়ে

সেই পার্পল রংয়ের গাড়িটির কথা।  দেখতে অসাধারণ ওই গাড়িটির এখনকার অবস্থা কিন্তু মোটেও ভাল নয়।  একেবারেই ভগ্নপ্রায় অবস্থায় গাড়িটি এখন একটি গ্যারাজে পড়ে রয়েছে। 

সিনেমায় দেখা গিয়েছিল, বহু কষ্টে বাবার পুরনো গাড়িকে মেরামত করে একেবারে নতুন রূপ দিয়েছিলেন নায়ক বৎসল শেঠ।  পরে ওই গাড়ির সাহায্যেই নিজের খুনিদের থেকে বদলা নিয়েছিলেন অজয় দেবগন।  এরপর অনেকেরই পছন্দ হয়েছিল গাড়িটি।  কিন্তু জানেন কী বর্তমানে একেবারে ভগ্নদশায় রয়েছে সেটি।  সম্প্রতি বিক্রম আদিত্য শুক্লা নামে এক ব্যক্তি গাড়িটিকে একটি গ্যারাজে দেখতে পান।  সেটি একেবারেই খারাপ অবস্থায় সেখানে পড়ে ছিল।  সামনে-পিছনে বেশ কিছু জায়গায় উঠে গিয়েছে রংও।  এরপরই তিনি গাড়িটির বেশ কয়েকটি ছবি তোলেন।  পরে নেটদুনিয়ায় সেই ছবি ভাইরালও হয়ে যায়। 

কিন্তু কেন এমন হল? জানা গিয়েছে, সিনেমা মুক্তির পরই ওই ধরনের গাড়ি জনসাধারণের জন্য বাজারে নিয়ে আসার কথা ছিল।  কিন্তু প্রথমদিকে সিনেমাটি তেমন জনপ্রিয়তা লাভ করতে পারেনি।  আর সেকারণেই গাড়িটিরও উৎপাদন শুরু হয়নি।  পরবর্তী সময়ে সিনেমাটি জনপ্রিয় হলেও গাড়িটির ভবিষ্যত একই থেকে গিয়েছে।  সেই গ্যারাজেই পড়ে থাকতে হয়েছে তাকে।  বলতে গেলে একইভাবে সিনেমার মূল অভিনেত্রী আয়ষা টাকিয়া এবং বৎসল শেঠের বলিউড কেরিয়ারও তেমন উচ্চতা পায়নি।