১৮, জানুয়ারী, ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯

‘সিনেমার জন্য নাকি স্যাক্রিফাইস করতে হবে’

আপডেট: ১৪ জানুয়ারী ২০১৮, ০৭:৫৮ পিএম

‘সিনেমার জন্য নাকি স্যাক্রিফাইস করতে হবে’

মালয়েশিয়ায় পড়াশুনা করতে গিয়ে হঠাৎই পর্দার আড়ালে চলে যান মডেলিং জগতের পরিচিত মুখ ফারিয়া শাহরিন। ২০১৫ সালের শেষের দিকের কথা। সেই সময় এক নাট্যপরিচালকের কাছ থেকে পারিশ্রমিক নিয়ে প্রতারিত হওয়ার কারণে অভিনয় ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন লাক্স তারকা ফারিয়া শাহরিন। ছেড়েও দিয়েছিলেন অভিনয়।


গত বছরের শেষের দিকে মডেল রিসিলার আত্মহত্যার পর আবারো আলোচনায় আসেন তিনি। রিসিলার আত্মহননে মর্মাহত হয়ে এক ভিডিও পোষ্টে মিডিয়ার প্রতি ক্ষোভ উগড়ে দেন। তখন অভিমানে অভিনয় ছাড়ার

ঘোষণা দিয়েছিলেন ছোটপর্দার এ অভিনয়শিল্পী।


তবে গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, অভিমান ভুলে ‘আতংক’ শিরোনামের একটি নাটক দিয়ে আবারো পর্দায় ফিরবেন তিনি। মালয়েশিয়া থেকে ছুটিতে দেশে ফিরে নাটকটিতে অভিনয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এ অভিনেত্রী। এর আগে অবশ্য দেশের শীর্ষস্থানীয় একটি পত্রিকাকে সাক্ষাতকার দিতে গিয়ে আবারো পুরনো ক্ষোভ প্রকাশ করেন এই অভিনেত্রী।


শুরুতেই প্রযোজকদের প্রতি নিজের অসন্তুষ্টির কথা জানান শাহরিন, তারা ভাবেন, তারা টাকা দিচ্ছেন, নায়িকা কেন তাদের সঙ্গে ঘুরবে না! নায়িকাকে বলেন, চলো ক্লাবে যাই, চলো ঘুরি। আমার কথা হলো, কাজ করতে আসছি। কাজ শেষে সম্মানী দিয়ে দেবেন, শেষ। এখন দেখি, যোগাযোগ রক্ষা করা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে গেছে।


অনেকেই দেখি আবার পরিচালক-প্রযোজকদের গিফট দেয়, খাওয়ায়। বাসায় দাওয়াত দেয়। আমি এসব করতে পারি না। আর এসব করি না বলেই হয়তো আমাকে ঘোরায়, সম্মানী ঠিকমতো দেয় না। তখন মেজাজ খারাপ হয়ে যায়।


আপনার অভিযোগ তো সব পরিচালক-প্রযোজকদের প্রতি, সবাই কী এমন? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কারও নাম বলতে চাই না। সমস্যাগুলো বলেছি, এটাই যথেষ্ট। কাদের নিয়ে বলছি, যারা সংশ্লিষ্ট, তারা ঠিকই বুঝতে পারবেন। আর মিডিয়ায় আমার অনেক শত্রু। দেখা যাবে, কোনো দিন আমাকে মেরে চলে যাবে। কাউকে নিয়ে কথা বলা খুব বিরক্তিকর আর আতঙ্কের।


সিনেমা প্রসঙ্গে শাহরিন বলেন, প্রস্তাব তো অনেক পেয়েছি। কিন্তু যখন পরিচালক বলেন, প্রযোজকের সঙ্গে বসতে হবে, তার সঙ্গে ডিনার করতে হবে। নাটকের সেটে অনেক সিনেমার পরিচালক দিনের পর দিন এসে বসে থাকতেন। কেউ কেউ ফোন করেছেন।


‘এই তো প্রেম’ সিনেমার জন্য নির্মাতা সোহেল আরমান অনেক অনুরোধ করেছেন। ‘আমি তোমার মনের ভেতর একবার ঘুরে আসতে চাই’ গানটা কতবার যে আমাকে শুনিয়েছেন। শেষ পর্যন্ত কাজটা করতে পারিনি। আমি শুনেছি এই ছবিতে শাকিব খানের সঙ্গে অভিনয় করতে হবে। তখন আমাকে অনেকেই বলেছেন, শাকিব খানের সঙ্গে সিনেমায় কাজ করতে গেলে স্যাক্রিফাইস করতে হয়। তাই করিনি।


অনেকেই আপনাকে ‘আবেদনময়ী’ বলেন সে বিষয়ে কী বলবেন? উত্তরে শাহরিন বলেন, আমি কখনোই অর্ধনগ্ন হয়ে কাজ করতে চাই না। স্লিভলেস পরা যায়, কিন্তু বিকিনি, টাইপ পোশাক পরে অভিনয় করতে পারব না। পর্দায় অনেক নায়িকাকে যেভাবে দেখি, ভয় লাগে। আমি ভদ্রভাবে কাজ করতে চাই। আমার কাছে আগে মা-বাবা, পরিবার তারপর অভিনয়।