১৭, জানুয়ারী, ২০১৮, বুধবার | | ২৯ রবিউস সানি ১৪৩৯

সিংড়ায় আড়াই শতাধিক সরকারী তাজা গাছ কেটে নিলো ইউপি চেয়ারম্যান গাছ খেকো চেয়ারম্যান আলতাব

সিংড়া(নাটোর) প্রতিনিধিঃ | বার্তাবাজার.কম

আপডেট: ১৪ জানুয়ারী ২০১৮, ০৪:১৬ পিএম

সিংড়ায় আড়াই শতাধিক সরকারী তাজা  গাছ কেটে নিলো ইউপি চেয়ারম্যান গাছ খেকো চেয়ারম্যান আলতাব

নাটোরের সিংড়ায় আড়াই শতাধিক সরকারী গাছ কাঁটার অভিযোগ উঠেছে ছাতারদিঘী  ইউপি চেয়ারম্যান আলতাব হোসেন আকন্দের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান সত্যতা স্বীকার করে বলেন, স্থানীয় আব্দুল জলিলের নেতৃত্বে গাছ গুলো লাগানো হয়েছিল। গাছগুলো ৮৫ হাজার টাকায় বিক্রয় করা হয়েছে। উপকারভোগীরা জানায়, গাছগুলোর আনুমানিক মূল্য প্রায় ১০ লক্ষ টাকা অথচ নামমাত্র মূল্যে বিক্রয় করেছে চেয়ারম্যান।

উপকারভোগী সদস্যরা জানান, ২০০৩ সালে নাটোর বনবিভাগ হতে ইউকেলাপটারসহ বিভিন্ন

প্রকৃতির প্রায় ৩ হাজার গাছ এনে আমরা সামাজিক বনায়নের প্রায় ২০জন সদস্য একলাশপুর বাজার সংলগ্ন পানাউল্লাহ খালের দুধারে তিন কিলোমিটার এলাকায় ঐ গাছগুলো লাগাই। দীর্ঘদিন থেকে গাছগুলো পরিচর্যা করে আসছি। স্থানীয় শত শত কৃষক খালের দুধারে জমিতে কৃষিকাজ করে বিশ্রাম নিতো। অথচ গত তিনদিন আগে স্থানীয় চেয়ারম্যান আলতাব হোসেন এসে আমাদের কে জানায় যে গাছগুলো ইউনিয়ন পরিষদের সে জন্য কাটা হবে। এসময় সামাজিক বনায়নের কয়েকজন সদস্য আপত্তি জানালে চেয়ারম্যান তাদেরকে অকট্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং  জোড়পূর্বক গাছগুলো কেটে নিয়ে যায়। এসময় উপকারভোগীদের আহাজারিতে কর্নপাত করেনি চেয়ারম্যান ও তাঁর লোকজন। 

উপকারভোগী আব্দুল জলিল, বক্কর, এরশাদ সরদার, মামুন হোসেন, মুজিবুর রহমান,জাহিদুল ও হালিমাসহ অন্যন্যেরা জানান, চেয়ারম্যান জোড়পূর্বক গাছ কেটে নিয়েছে। আমাদের কোন নিষেধ মানেনি। আমরা এর প্রতিকার চাই।

সিংড়া উপজেলা বনবিভাগের কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান জানান, আমরা জানতে পেরে সরেজমিনে যাচ্ছি। এ ব্যাপারে ঘটনার সত্যটা যাচাই করে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষকে অবগত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সন্দ্বীপ কুমার সরকার জানান, বন বিভাগকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তারা তদন্ত করে রিপোর্ট দিলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।