১৮, জানুয়ারী, ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯

বর্ষসেরা শিক্ষক এ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন রাবি শিক্ষক ড. মুসতাক আহমেদ

সাঈদ সজল, রাবি: | বার্তাবাজার.কম

আপডেট: ১৪ জানুয়ারী ২০১৮, ০৮:৫৭ এএম

বর্ষসেরা শিক্ষক এ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন রাবি শিক্ষক ড. মুসতাক আহমেদ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মুসতাক আহমেদ বর্ষসেরা শিক্ষক এ্যাওয়ার্ড-২০১৮ এর জন্যে মনোনিত হয়েছেন।  আগামী ২৭-২৯ জানুয়ারি ভারতে বারাবাংকি শহরে অনুষ্ঠিতব্য এক আন্তর্জাতিক কনফারেন্সে তাকে এ এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে। 



জানা গেছে, আগামী ২৭-২৯ জানুয়ারি ভারতে উত্তর প্রদেশের বারাবাংকি শহরে উচ্চ শিক্ষা বিষয়ক ৯ম আন্তর্জাতিক কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হবে।  এর আয়োজন করেছে সাউথ এশিয়া ম্যানেজমেন্ট এ্যাসোসিয়েশন

এবং বারাবাংকির সরকারি মুন্সি রঘুনন্দন প্রসাদ সরদার পাতেল মহিলা পিজি কলেজ। 



কনফারেন্সের প্রথমদিন ২৭ জানুয়ারি ‘বেস্ট টিচার অফ দ্যা ইয়ার’ এ্যাওয়ার্ড-২০১৮ তুলে দেওয়া হবে।  গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতার বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখার জন্যে ড. মুসতাক আহমেদকে এ এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হচ্ছে বলে মনোনয়ন কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। 



এ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে ভারতের উত্তর প্রদেশের গভর্নর রাম নায়েক, প্রদেশের শিক্ষামন্ত্রী সন্দীপ সিং, ড. রাম মনোহর লোহিয়া আভাধ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. প্রফেসর মনোজ দীক্ষিত প্রমুখ উপস্থিত থাকবেন। 



এ বিষয়ে জানতে চাইলে ড. মুসতাক আহমেদ বলেন, আমার একাডেমিক প্রোফাইল দেখে তারা আমাকে এ্যাওয়ার্ড প্রদানের জন্যে আমন্ত্রণ জানিয়েছে।  একজন শিক্ষক হিসেবে এমন স্বীকৃতি পাওয়া অত্যন্ত আনন্দের।  এটি আমার বিভাগ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরবের বিষয়।  এভাবেই বিশ্বের দরবারে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়কে তুলে ধরার প্রচেষ্টা আগামীতেও অব্যহত থাকবে। 



প্রসঙ্গত, গত ২৭-২৯ সেপ্টেম্বর ফিলিপাইনের ম্যানিলায় অনুষ্ঠিত ২৫তম এমিক কনফারেন্সে ড. মুসতাকের প্রেজেন্টশন প্রশংসিত হয়েছিল। 



এদিকে জয়পুরহাটের কৃতি সন্তান শিক্ষক ড. মুসতাক আহমেদ বর্ষসেরা শিক্ষক মনোনিত হওয়ায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের জয়পুরহাট জেলা সমিতির পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানানো হয়েছে।  সমিতির সভাপতি ও আইন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাদিকুল ইসলাম সাগর ও সাধারণ সম্পাদক মোস্তফিজ মিশু এক বার্তা এ অভিনন্দন জানান।  আগামীতেও ড. মুসতাক আহমেদ শিক্ষক হিসেবে দেশ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের মুখ উজ্জ্বল করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন নেতৃবৃন্দ।