১৯, এপ্রিল, ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ৩ শা'বান ১৪৩৯

ধর্ষণের লজ্জা সইতে না পেরে শরীরে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা

আপডেট: ০৪ জানুয়ারী ২০১৮, ১০:৩০ এএম

ধর্ষণের লজ্জা সইতে না পেরে শরীরে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা
বরিশালের বাকেরগঞ্জে ধর্ষণের শিকার হয়ে নিজের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়ে সোনিয়া নামে ৭ম শ্রেণির এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।  ঘটনার ৭দিন পরও ধর্ষককে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।  এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেছে নিহতের স্বজন ও সহপাঠীরা।  তবে পুলিশ জানিয়েছে, জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।     


স্বজনরা জানান, গত ২৭ শে ডিসেম্বর বাকেরগঞ্জ উপজেলার মধ্য চরাদী
গ্রামে কৌশলে স্কুলছাত্রী সোনিয়াকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে প্রতিবেশী যুবক আসাদ।  এ ঘটনায় লজ্জা  ক্ষোভে নিজের শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সে।  পরে গুরুতর অবস্থায় তাকে প্রথমে বরিশাল মেডিকেল এবং পরে ঢাকা মেডিকেলে নেয়া হয়।  ৩১শে ডিসেম্বর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। 

ময়না তদন্ত শেষে পহেলা জানুয়ারি রাতে সোনিয়ার দাফন সম্পন্ন হয়।  এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানিয়েছেন স্বজন ও সহপাঠী।   শিক্ষার্থীর মা বলেন, 'অভিযুক্ত আসাদ মেয়েকে ডেকে নিয়ে যেয়ে ধর্ষণ করেছে।  আমার মেয়ে লজ্জায় অপমানে সহ্য করতে না পেরে নিজের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আত্মহত্যা করেছে।  এই ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত তাদের যেন ফাঁসি হয়। '

জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।   এ ঘটনায় সোনিয়ার মা বাদী হয়ে দোসরা জানুয়ারি বাকেরগঞ্জ থানায় আসাদ খানসহ ৪ জনকে আসামী করে একটি মামলা করা হয়েছে।