২০, জানুয়ারী, ২০১৮, শনিবার | | ৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯

ওয়ানডেতে সর্বনিম্ন রানে অলআউট হওয়ার ১০টি লজ্জা

আপডেট: ১১ ডিসেম্বর ২০১৭, ১২:৩৭ পিএম

ওয়ানডেতে সর্বনিম্ন রানে অলআউট হওয়ার ১০টি লজ্জা

জুবায়ের আহমেদ: ওয়ানডে ক্রিকেট ৩০০ বলের খেলা অর্থাৎ একটি দল এক ইনিংসে ৩০০ বল মোকাবেলা করার সুযোগ পায়। বর্তমান সময়ে টি২০ ক্রিকেটের দ্রুতগতিতে রান তোলার গতি ওয়ানডেতেও দেখা যায় অনেক সময়। ফলে ৩০০ বলে ৪০০ কিংবা ততোধিক কিংবা নিয়মিত ভাবেই ৩০০ রানের বেশি হয়।

ওয়ানডে ক্রিকেট আবির্ভাবের পর নিয়মিত ৩০০ কিংবা ততোধিক রান যেমন হয়, তেমনি প্রায়শ দলগুলো চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে ১০০ রানের মধ্যে বিশেষ করে ৫০ রানের মধ্যেও অলআউট হয়। ছোট দলগুলোর সাথে সাথে বড় বড় দলগুলোও এমন

লজ্জায় পতিত হয়েছে।


ওয়ানডে ক্রিকেটে সর্বনিম্ন রানে অলআউট হওয়া ১০টি ইনিংস-

১। জিম্বাবুয়ে ২০০৪ সালে শ্রীলংকার সাথে মাত্র ৩৫ রানে অলআউট হয়।

২। কানাডা ২০০৩ সালে শ্রীলংকার সাথে মাত্র ৩৬ রানে অলআউট হয়।

৩। জিম্বাবুয়ে ২০০১ সালে শ্রীলংকার সাথে মাত্র ৩৮ রানে অলআউট হয়।

৪। শ্রীলংকা ২০১২ সালে আফ্রিকার সাথে মাত্র ৪৩ রানে অলআউট হয়। 

৫। পাকিস্তান ১৯৯৩ সালে উইন্ডিজের সাথে মাত্র ৪৩ রানে অলআউট হয়।

৬। জিম্বাবুয়ে ২০০৯ সালে বাংলাদেশের সাথে মাত্র ৪৪ রানে অলআউট হয়।

৭। কানাডা ১৯৭৯ সালে ইংল্যান্ডের সাথে মাত্র ৪৫ রানে অলআউট হয়।

৮। নামিবিয়া ২০০৩ সালে অস্ট্রেলিয়ার সাথে মাত্র ৪৫ রানে অলআউট হয়।

৯। ভারত ২০০০ সালে শ্রীলংকার সাথে মাত্র ৫৪ রানে অলআউট হয়।

১০। উইন্ডিজ ২০০৪ সালে আফ্রিকার সাথে মাত্র ৫৪ রানে অলআউট হয়।

এছাড়াও জিম্বাবুয়ে আফগানিস্তানের সাথে ৫৪, শ্রীলংকা উইন্ডিজের সাথে ৫৫, বাংলাদেশ উইন্ডিজের সাথে ৫৮, ভারতের সাথে ৫৮ রানে, আফগানিস্তান জিম্বাবুয়ে সাথে ৫৮ রানে ও উইন্ডিজ বাংলাদেশের সাথে ৬১ রানে অলআউট হয়।

সর্বনিম্ন ১০টি কম রানের ইনিংসের মধ্যে অপরদলকে সর্বোচ্চ ৪ বার অলআউট করেন শ্রীলংকা, ১০ বারের মধ্যে ৩বার অলআউট হয় জিম্বাবুয়ে, কানাডা ২ বার অলআউট হয়।

গতকাল শ্রীলংকা বনাম ভারতের ম্যাচে ভারত মাত্র ২৯ রানে ৭ উইকেটের পতন ঘটায় জিম্বাবুয়ের গড়া ৩৫ রানের আগেই ভারত অলআউট হওয়ার সম্ভাবনা তৈরী হয়েছিল, তবে অভিজ্ঞ ধোনির কল্যাণে ৩৫ রান টপকে এবং নিজেদের সর্বনিম্ন ৫৪ রানও টপকিয়ে ১১২ রান করে ভারত।