১৮, জানুয়ারী, ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯

অন্ধকার ঘর! এই যৌনপল্লীর মেয়েদের কথা জানলে গা শিউরে উঠবে

আপডেট: ২০ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৭:৩৮ পিএম

অন্ধকার ঘর! এই যৌনপল্লীর মেয়েদের কথা জানলে গা শিউরে উঠবে

মাত্র ১২ বছর বয়সেই কর্ণাটকের এক প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে মুম্বইতে নিয়ে আসা হয়েছিল রেখাকে(নাম পরিবর্তিত)। পাঁচ ভাইবোনের মধ্যে সেই সবথেকে বড়। কামাথিপুরায় বিক্রি করে দেওয়া হয় তাকে। দিনে-রাতে অন্তত ৮-১০ জন ক্লায়েন্টকে সামলাতে হয় তাকে।

কামাথিপুরার ১৪টি লেন। ধর্ম, ভাষার ভিত্তিতে জায়গাগুলি ভাগ করা হয়েছে। কুমারীত্ব এদের জন্য অভিশাপ। কাজে যেতে না চাইলে তাদের অন্ধকার ঘরে বন্দি করে রেখে দেওয়া হয়। যাতে তারা একসময় নিজেরাই বাধ্য হয় যৌনব্যবসায় নামতে। তারপর বাকি জীবনটা

দুঃস্বপ্নের মত কাটে। তাদের দেওয়া হয় ড্রাগ, আবেদনময়ী করে তোলার জন্য দেওয়া হয় ‘কাউ স্টেরয়েড’। এরা বেশিরভাগই দেবদাসী প্রথার ফল। অত্যন্ত দারিদ্র্যের চাপে সন্তানকে বিক্রি করে দিতে বাধ্য হয় বাবা-মায়েরা।

যৌনপল্লীর ব্যবসায় পড়ে তারা ক্রমশ একঘরে হয়ে যায় আর দুর্বল হয়ে পড়ে। এই জায়গাটার আসল নামটাই বদলে এখন ‘রেড স্ট্রিট অফ বোম্বে’ হয়ে গেছে। এশিয়ার মধ্যে এটি দ্বিতীয় বৃহত্তম রেড লাইট এরিয়া।