২৩, অক্টোবর, ২০১৮, মঙ্গলবার | | ১২ সফর ১৪৪০

রাজশাহীতে ইমামের দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে থানা ঘেরাও, ঝাড়– মিছিল

আপডেট: মে ১২, ২০১৮

রাজশাহীতে ইমামের দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে থানা ঘেরাও, ঝাড়– মিছিল

রাজশাহী ব্যুরো:রাজশাহী মহানগরীর শিরোইল কলোনী জামে মসজিদের ইমামের দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে চন্দ্রিমা থানা ঘেরাও অবস্থান কর্মসূচি ও ঝাড়ু উচিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন রাসিক ১৯ নং ওয়ার্ডের জনগণ ।

শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দলমত নির্বিশেষে নগরীর শিরোইল কলোনীর সকল শ্রেণী পেশার প্রায় সহ¯্রাধিক বিক্ষুদ্ধ নারী-পুরুষ থানা ঘেরাও করে আন্দোলন কর্মসূচি পালন করে। এ সময় তারা থানার সামনে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে। পরে চন্দ্রিমা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ হুমায়ুন কবির বিক্ষুদ্ধ জনতার সামনে উপস্থিত হয়ে বলেন, মোঃ নুরুজ্জামান টিটুর বিরুদ্ধে ইমামের দায়েরকৃত অভিযোগ সত্য নয়। এবং এ বিষয়ে থানায় কোন মামলা হয় নাই বলে জানান তিনি। এ সময় ওসির বক্তব্যে ১৯ নং ওয়ার্ডের জনগণ আশ্বস্ত হয়ে ফিরে যান।

ওই সময় তারা বালাৎকারী তোহিদুল হক সুমনের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে, শিরোইল কলোনী জামে মহজিদের ইমামের মুফতি মাওলানা মাইনূল ইসলাম আসরাফির বিচারের দাবিতে এবং শিরোইল কলোনী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিরঞ্জন প্রামানিকের গ্রেফতার শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ করতে থাকে।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিক্ষুদ্ধ জনতা শিরোইল কলোনীর ১৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর অফিসের সামনে থেকে ঝাড়– হাতে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি সুমনের বাড়ির সামনে দিয়ে হাজরা পুকুর, ছোট বনগ্রাম ও বার রাস্তার মোড়সহ বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে।

জানতে চাইলে, শিরোইল কলোনীর বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব লাকি মৌহরী জানান, শিরোইল কলোনী জামে মসজিদের ইমাম ও শিরোইল কলোনী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিরঞ্জন প্রামানিক অপরাধী মহানগর যুবলীগ নেতার বালাৎকারের অপরাধ ঢাকতে তার দির্ঘদিন যাবত মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার মসজিদে খুদবা পাঠের সময় সুমনের প্রসঙ্গ তুলে বক্তব্য দেওয়ায় মুসল্লিরা ক্ষিপ্ত হয়ে ইমামের উপর চড়াও হয়।

চন্দ্রিমা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ুন কবির জানান, শিরোইল কলোনীর তাদেও কাউন্সিলর মোঃ নুরুজ্জামান টিটুর বিরুদ্ধে বাদি হয়ে ইমাম মামলা করেছে। এমন তথ্যে ভিত্তিতে তারা দলবদ্ধ হয়ে চন্দ্রিমা থানার সামনে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে জড়ো হয়। মামলার বিষয়টি সত্য নহে বলে আমি তাদের আশ্বস্ত করলে তারা নিজ গন্তব্যে ফিরে যান বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, এক কিশোরের সঙ্গে রাজশাহী মহানগর যুবলীগের বহিস্কৃত যুগ্ম-সম্পাদক তৌহিদুল হক সুমনের বিকৃত যৌনচারের ভিডিও গত ১৫ এপ্রিল ফাঁস হয়। পরে একাধিক অনলাইন পোর্টাল, রাজশাহীর স্থানীয় পত্রিকা ও জাতীয় পত্রিকায় সংবাদটি প্রকাশের পর তোলপাড় শুরু হয়। পরে গত ২০ এপ্রিল রাজশাহী মহানগর যুবলীগ থেকে সুমনকে বহিস্কার করা হয়। সঙ্গে কারণ দর্শাতে ১৫ দিনের সময় বেঁধে দেয়া হয়। ১৫ দিন অতিবাহিত হলেও মহানগর যুবলীগের নিকট ও এলাকাবাসীর নিকট নির্দোষ প্রমান করতে পারেনি তৌহিদুল হক সুমন। ইতিমধ্যেই তার শিকারোক্তি মূলক অডিও রেকর্ড ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।