আজ বৃহস্পতিবার রাত ৪:০১, ১৯শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৭শে মুহাররম, ১৪৩৯ হিজরী

‘বাংলাদেশ ক্রিকেট সত্যিই খুব ভালো করছে’

নিউজ ডেস্ক | বার্তা বাজার .কম
আপডেট : মার্চ ১১, ২০১৭ , ৯:১৬ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : খেলাধুলা
পোস্টটি শেয়ার করুন

২০১১ সালে ২২ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ার শেষ হবার আগে ক্রিকেটের তিন সংস্করণে ২০,০০০ এরও বেশি রান এবং সর্বসাকুল্যে ৪৪০ উইকেট নিয়েছেন শ্রীলঙ্কান অলরাউন্ডার সনাথ জয়সুরিয়া। গল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ- শ্রীলঙ্কা ম্যাচ চলাকালে গণমাধ্যমের সাথে কথা বলেছেন ৪৭ বছর বয়সী সাবেক এই শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তি। সেখানে এসেছে বাংলাদেশের প্রসঙ্গও।

শ্রীলঙ্কা দলটি এই মুহূর্তে কেমন করছে?

বর্তমানে আমরা শ্রীলঙ্কা দলটিকে গড়ে তোলার চেষ্টা করছি। আমাদের বেশ কয়েকজন তরুণ প্রতিভাবান ক্রিকেটার রয়েছে এবং আমরা তাদের সুযোগ করে দিচ্ছি। তাঁরাও ভালো করছে। শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নিতে কিছু সময় লাগবে। আমরা দেশের মাটিতে ভালো করছি। কিন্তু, দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে খেলোয়াড়েরা যা পারফর্ম করেছে তাতে প্রধান নির্বাচক হিসেবে আমি খুশি নই। আমরা এখন পরিবর্তনের একটি অবস্থায় আছি এবং দলের খেলোয়াড়দের এ পরিস্থিতিতে থিতু হতে কিছুটা সময় লাগবে কারণ আমাদের দল এখন তরুণ একটি দল।

শ্রীলঙ্কার সেই পুরনো গৌরবময় দিনগুলো ফিরিয়ে আনতে কত সময় লাগবে?

এটা আসলে এখন বলাটা মুশকিল। এখনকার তরুণদের অভিজ্ঞতা হলে তাঁরাও একসময় আমাদের মত পারফর্ম করতে পারে। এটা আসলে নির্ভর করে তাঁরা কতটুকু সুযোগ পাচ্ছে এবং কতদিন ধরে জাতীয় দলে খেলছে তার ওপর। তখনই আমরা তাদের আসল পারফরম্যান্স দেখতে পাবো।

আমাদের ক্রিকেট এখন সঠিক সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট এখন বেশি বেশি আঞ্চলিক  ও বয়সভিত্তিক ক্রিকেটের আয়োজন করছে। সেইসাথে প্রতিভাবান ক্রিকেটার খোজার কার্যক্রমও চলছে। সুতরাং শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট কঠোর বর্তমানে পরিশ্রম করছে। আমরা সঠিক পথেই আছি। আমাদের বিশ্বকাপ জেতার প্রয়োজন নেই। একটি বিশ্বকাপ জেতার পর আমরা সেমিফাইনাল ও ফাইনাল খেলেছি মানে আমরা ভালো করছি।

বাংলাদেশ এবার ১০০ তম টেস্ট ম্যাচ খেলতে যাচ্ছে। তাদের উন্নতি কতটুকু আপনার চোখে পড়েছে?

তাঁরা সত্যিই খুব ভালো খেলছে এবং উন্নতিও করছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড তৃণমূলে দারুণ কাজ করছে এবং তরুণদের বের করে আনছে। এই মুহূর্তে বাংলাদেশ খুব ভালো একটি দল এবং এই দলটি অনেকদিন ধরে খেলে আসছে। মাঝেমাঝে হয়ত খারাপ সময় আসবেই কিন্তু বাংলাদেশ ক্রিকেট সত্যিই খুব ভালো করছে।

খেলোয়াড়ী জীবনে ঢাকার ক্লাব ক্রিকেট কেমন উপভোগ করতেন?

আমার ক্লাব ছিল মোহামেডান। আমি মোহামেডানের হয়ে খেলার সময়গুলো খুব উপভোগ করেছি। তাঁরা আমাকে খুব সমাদর করত। মাহবুব (আনাম) খুব দেখাশুনা করত আমার।

ক্রিকেট ছাড়ার পর নির্বাচক। কেমন ছিল এ যাত্রা?

আমার যাত্রা খুব ভালো ছিল। ২০ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে আমি যা করেছি এবং খেলা ছাড়ার পর প্রধান নির্বাচক হিসেবে ক্রিকেটের সাথে যুক্ত থাকতে পেরে আমি খুব খুশি। আমি দুই বছর ধরে প্রধান নির্বাচকের দায়িত্ব পালন করছি। প্রধান নির্বাচক হিসেবে আমি সবসময় শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটকে যতটা সম্ভব দিয়ে যেতে চাই এবং তা করতে পারলেই আমি খুশি। আসল ব্যাপার হচ্ছে আমি যত বেশিদিন ধরে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের উন্নয়নে কাজ করতে পারি।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট সম্পর্কে আপনার মতামত কী?

ওয়ানডে ও টেস্ট ক্রিকেটের পর টি-২০ এর আবির্ভাব ঘটেছে। এটা ক্রিকেটের আরেকটি সংস্করণ। অন্য সবার মত আমিও টি-২০ ক্রিকেট পছন্দ করি। কিন্তু আমার কাছে টেস্ট ক্রিকেটই আসল ক্রিকেট। আমি টেস্ট ক্রিকেট ভালবাসি এবং এ ভালবাসা সবসময় থাকবে। আমার খেলার ধরন আক্রমণাত্মক হলেও এটা টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-২০ ক্রিকেটের সাথে মানানসই।

মাহেলা জয়াবর্ধনে ও কুমার সাঙ্গাকারা শুণ্যতা কে পূরণ করবে বলে আপনি মনে করেন?

এই ধরনের খেলোয়াড়দের বিকল্প আপনি রাতারাতি পেয়ে যাবেন না। অরভিন্দ ডি সিলভার শুণ্যতা আমরা এখনো পূরণ করতে পারিনি। অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য খেলোয়াড়দের সুযোগ দিতে হবে এবং তারপর হয়ত একদিন আমরা এদের নিয়েও কথা বলব।

একজন ব্যাটসম্যান হিসেবে মেন্ডিসকে কেমন দেখছেন?

বড় ইনিংস খেলার ব্যাটসম্যান মেন্ডিস। সে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে গিয়েছে। সে কিছু অর্ধশতক হাকিয়েছে কিন্তু সেগুলোকে শতকে পরিণত করতে পারেনি। কিন্তু অস্ট্রেলিয়া সিরিজে সে একটি বড় শতক হাকিয়েছিল এবং আমরা ৩-০ তে সিরিজ জিতেছিলাম। বাংলাদেশের বিপক্ষে এই ম্যাচে সে একটি সুযোগ পেয়েছিলো এবং ১৯৪ করে ফেলল। এটাই আসলে করা উচিত।-খেলাধুলা