পাবিপ্রবি’র শিক্ষার্থীদের মাদকের পক্ষে অবস্থানের জন্যে উৎসাহ

রাজশাহী

রাকিবুল হাসান, পাবনা প্রতিনিধি: পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এবার শিক্ষার্থীদের মাদকের পক্ষে অবস্থান নেওয়ার জন্যে প্রতিটি বিভাগে এক অফিস আদেশ প্রেরণ করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তারে মধ্যে ব্যfপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মারক নং ২৪০/১১৫, তারিখ-১১-০২-২০১৯ ইং এর অফিস আদেশ মোতাবেক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-রেজিষ্ট্রার মোঃ কামরুল হাসান স্বাক্ষরিত ওই প্রত্রে প্রতিটি বিভাগীয় চেয়ারম্যানদের শুধুমাত্র ২য় বর্ষের শিক্ষার্থীদের র‌্যাগ ও ড্রাগ বিরোধী কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকার জন্যে সচেতনতামূলক কর্মসূচী গ্রহনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের উৎসাহ প্রদান করার নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

সেই অফিস আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে যে, আদিষ্ট হয়ে জানানো যাচ্ছে যে, গত ৮ জানুয়ারী বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন র‌্যাগিং ও ড্রাগ সংক্রান্ত পত্রের ৪ নং নির্দেশনা মোতাবেক এই বিশ্ববিদ্যালয়ে র‌্যাগিং অনুৎসাহিত করার লক্ষ্যে প্রতিটি বিভাগের চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে সংশ্লিষ্ট বিভাগের শুধুমাত্র ২য় বর্ষের শিক্ষার্থীদের কথা উল্লেখ করা হয়।

ওই পত্রের শেষ লাইনের আগের লাইনে মাদক বিরোধী কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকার জন্যে উৎসাহ প্রদানের জন্যে নির্দেশ প্রদান করা হয়। এই কথার অর্থ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাদকের পক্ষে অবস্থান করার কথা বলা হয়। বিষয়টি নিয়ে এই অফিস আদের পাবিপ্রবির প্রতিটি বিভাগে পৌঁছালে শিক্ষকদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। কিছুক্ষনের মধ্যে বিষয়টি পুরো ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পরে বলেও একাধিক শিক্ষার্থীরা দাবী করেন।

কয়েকজন শিক্ষক জানান, এই অফিস আদেশ পাওয়ার পর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যম্পাসে হৈচৈ পরে যায়। পরে স্ব স্ব বিভাগের চেয়ারম্যানরা ওই অফিস আদেশটি নোটিশ বোর্ডে টাঙানো থেকে বিরত থাকেন। যাই হোক না কেন, অফিস আদেশে এ ধরনের ভুল করা মোটেই উচিত হয়নি। যারাই করুক না কেন আরো সচেতন হওয়া জরুরী বলেও তারা মন্তব্য করেন।

বিষয়টি নিয়ে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-রেজিষ্ট্রার মোঃ কামরুল হাসান বলেন, এখানে আমার কোন করনীয় নেই। আমি শুধুমাত্র নির্দেশনা মোতাবেক বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন থেকে পাঠানো পত্রের অনুলিপি করেছি। ভুল করে থাকলে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন থেকে পাঠানো পত্রেই ভুল আছে। আমরা তো শুধুমাত্র উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের হুকুম অনুসারে কাজ করি।

এ বিষয়ে পাবিপ্রবির ভাইস চ্যান্সেলর ড. রোস্তম আলী ফরাজী বলেন, বিয়টি আমার জানা নেই, খোঁজ নিয়ে দেখছি। তবে ওই অফিস আদেশে ভাষাগত ভুল হতে পারে বলেও তিনি বলেন। তবে আমরা কখনোই শিক্ষার্থীদের মাদকের পক্ষে অবস্থান নেওয়ার জন্যে উৎসাহ দিব না বরং নিরুৎসাহিত করবো।