অবসরের পরে শেখ হাসিনার সিদ্ধান্ত!

রাজধানী

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যখন আমি (রাজনীতি থেকে) অবসর নেবো, তখন আমার গ্রামে চলে যাবো, সেখানেই থাকবো- এটা আমার সিদ্ধান্ত। আমি আমার গ্রাম টুঙ্গীপাড়ায়, আমার পৈতৃক বাড়িতে থাকবো।

মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকালে গাজীপুরের সফিপুরে বাংলাদেশ আনসার ও ভিডিপি একাডেমিতে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য শেষে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

শৈশবের স্ম্রতিচারণ করে আবেগাপ্লুত শেখ হাসিনা বলেন, আমার দাদার একটি বড় পানশি (বড় নৌকা) ছিলো, এর ছিলো দু’টি কক্ষ ও জানালা। আমি নৌকায় উঠলেই জানালার পাশে বসতাম এবং দুই হাতে জানালা দিয়ে পানি ছুঁইতাম।

তিনি বলেন, অন্যদের সঙ্গে বিশেষ করে আমার ভাই কামালসহ (শেখ কামাল) আমি নৌকার ছাদে লাফালাফি ও নাচানাচি করতাম। নৌকা দেখলেই আমার আমার শৈশবে কাটানো সেই দিনগুলোর স্মৃতি মনে পড়ে যায়।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু দেশ স্বাধীন করেছেন, তার লক্ষ্য ছিল ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত সোনার বাংলা গড়ে তোলা। আমাদের অঙ্গীকার এই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করা।

এ সময় সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ক্ষুধা দূর করেছি এবং উল্লেখযোগ্য হারে দারিদ্র্য কমিয়ে এনেছি। শিগগিরই দারিদ্র্য হার আরো কমিয়ে আনব, বাংলাদেশ আরও উন্নত ও সমৃদ্ধ হবে। এজন্য সবার সহযোগিতা চাই।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া, সংসদ সদস্য, তিনবাহিনী প্রধান ছাড়াও সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।