নাসা’র চাঁদে অভিযান ও অবস্থানের ঘোষণা

আন্তর্জাতিক তথ্য ও প্রযুক্তি

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা নতুন করে চাঁদে অভিযান ও সেখানে অবস্থান করার ঘোষণা দিয়েছে। তারা বলছে, আগামী দশকের মধ্যে এ কাজটি সম্পন্ন করা হবে। এবার নভোচারীরা চাঁদে গিয়ে অল্প সময়ের মধ্যে ফিরবেন না, তারা সেখানে অবস্থান করবেন।

নাসা প্রশাসক জিম বারডেনস্টাইন বলছেন, চাঁদে আবারও অভিযান এবং সেখানে অবস্থানের ব্যাপারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং কংগ্রেসের অনুমতি মিলেছে। দ্য ইন্ডিপেনডেন্ট।

জিম বারডেনস্টাইন বলছেন, চাঁদে নতুন অভিযানে অংশ নেয়া নভোচারীরা সফল হলে একদিন মঙ্গল অভিযানেও মানুষ পাঠানো হবে। সেটা হবে এক নতুন ইতিহাস। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সেই কাঙ্খিত সফলতার জন্য নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলছেন, পুনরায় চাঁদে অভিযানের ব্যাপারটা নিয়ে আমি রোমাঞ্চিত। তবে অনেকে বলছেন ৫০ বছর আগে যেভাবে নভোচারীরা ফিরে এসেছিলেন এবারও তাই হবে। তবে পরিষ্কার করে বলতে চাই, ‘এবারের অভিযানের উদ্দেশ্য ফিরে আসা নয়। এবার আমরা চাঁদে যাচ্ছি নতুন প্রযুক্তি নিয়ে যা চন্দ্রপৃষ্ঠের নতুন অঞ্চল আবিষ্কার করবে এবং যা আমরা চিন্তা-ভাবনা করেছি তার বাস্তবায়ন ঘটানো হবে। এবারের যাত্রায় আমরা ফিরব না, চাঁদে অবস্থান করব।’

নাসা প্রশাসক বলছেন, নাসার এ পরিকল্পনা আগামী সপ্তাহ থেকেই বাস্তবায়নের কাজ শুরু হচ্ছে। চন্দ্রযানের বিষয়ে আলোচনার জন্য ইতিমধ্যে পরিকল্পনায় জড়িত বিভিন্ন সংস্থার লোকজনকে নাসায় আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। চাঁদে কার্গো পাঠানোর জন্য ৯টি কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগও করা হয়েছে। আগামী দশকের মধ্যে চাঁদে মানুষ অবস্থান করবে এটাই প্রধান লক্ষ্য।

তিনি জানাচ্ছেন, দুনিয়াবাসী দেখবে এবার চাঁদে নভোচারীরা নতুন গন্তব্য আবিষ্কার করেছেন এবং সেখানে মানুষ অবস্থান করছে। এ নতুন চন্দ্র অভিযান মঙ্গল গ্রহে মানুষ পাঠানোর মিশনে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে বলে তিনি মনে করেন।