দলের এই বিপদে আশরাফুলকে খুব দরকারঃ চিটাগাং ভাইকিংস

খেলাধুলা

টানা ২বার হেরেছে চিটাগাং ভাইকিংস, টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে চিটাগংকে বিশাল রানে টার্গেট দেয় রাজশাহী কিংস নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৯৮ রানে করে রাজশাহী। ১৯৯ রানে টার্গটে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ডট বলে দিয়ে হলেও পরের বলেই ৬ হাঁকান ওপেনার শাহজাদ। পরে বলে আবার চার। প্রথম ওভারেই তিনটি ছক্কা হাঁকিয়ে তুলে নিলেন ২২ রান।

প্রথম ভালো শুরু করলেও পরে রানের চাকা কমে আসে। তাণ্ডব শুরু আগেই ডেলপোর্টকে ফেরালেন মোস্তাফিজ। ৮ বলে ৭ রান করেন তিনি। ডেলপোর্ট আউট হলেও টর্নেডো ব্যাটিং চালান শাহজাদ। শাহজাদ ৫ ছয় ও ৩ চারে ২২ বলে অর্ধশতক হাঁকানো আগেই মিরাজে বলে ফিরে যান। ২২ বলে ৪৯ রান করেন ফিরেন তিনি।

শাহজাদ না পারলেও নিজের আরেকটি অর্ধশতক তুলে নিয়েছেন ইয়াসির আলি। ৩২ বলে ৫২ রান করে হাফসেঞ্চুরি করেন তিনি। ২ ছয় ৬ চারের মাধ্যমে অর্ধশতক হাঁকান। এর পর অবশ্য বেশি দূর আঘাতে পারেননি তিনি। ৩৮ বলে ২ ছয় ও ৭ চারে ৫৮ রানে করে আরাফাত সানির বলে ফিরে যান। এর পরই ফিরে যান অন্যতম ভরসার প্রতীক অধিনায়ক মুশফিক। ২০ বলে ২২ রান করে কামরুল ইসলামের বলে ফিরে যান মুশি।

এরপর ৩ বলে মাত্র ১ রান করে মেহেদি মিরাজের বলে ফিরে যান মোসাদ্দেক। কিন্তু মোসাদ্দেক ফিরলেও তাণ্ডব চালান সিকান্দার রাজা। শেষ ২ ওভারর দরকার হয় ২১ রান। শ্বাসরুদ্ধকরে পরিণত হয় ম্যাচ। ১৯ নম্বর ওভারে বোলিং করেন কামরুল। এই ওভারে ৮ রান দিয়ে তুলে নেন নাজিবুল্লাহকে। শেষ ওভার দরকার হয় ১৩ রান। শেষ ওভারের মোস্তফিজের প্রথম বলে সরাসরি বোল্ট হন রাজা। ১৫ বলে ২৯ রান করেন তিনি।শেষ পর্যন্ত ৭ রানে জয় পায় রাজশাহী।

এর আগে চলতি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসরে আজ শনিবার (২৬ জানুয়ারি) দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি চিটাগং ভাইকিংস ও রাজশাহী কিংস। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় ম্যাচটি শুরু হয় সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায়। দুই দলের একাধিক পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নেমেছেন তারা। টসে জিতে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চিটাগংয়ের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালোই করেছে রাজশাহী। দুই ওপেনার সৌম্য সরকার ও জনসন চালর্স শুরুতেই চালিয়ে খেলেন। চালর্স কিছুটা গুটিয়ে থাকলেও তাণ্ডব চালান সৌম্য। কিন্তু খালেদের বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে মুশফিকের হাতে ধরা পড়ে ফিরে যান তিনি। ২০ বলে ২৬ রান করেন সৌম্য।

সৌম্য আউট হলেও তাণ্ডব চালিয়েছেন চালর্স ও লরি ইভান্স। এবারের বিপিএলে প্রথমবারের মতো রাজশাহী হয়ে মাঠে নেমেই নিজের অর্ধশতক তুলে নিলেন জনসন চালর্স। গত বছর রংপুরের হয়ে খেলেছিলেন চালর্স। এবার রাজশাহীর হয়ে মাঠে নেমেছেন। ৪০ বলে ৫০ রান করে নিজের অর্ধশতক করেন তিনি।

চালর্স হাফসেঞ্চুরি করলে ফিরে যান লরি। খালেদের বলে উইকেটকিপার শাহজাদের হাতে ধরা পড়ে ২৯ বলে ৩৬ রান ফেরেন তিনি। এরপর ক্রিজে আসেন রায়ান টেন ডেসকাটে। ক্রিজে এসেই নাইম হাসানের বলে পরপর তিনটি ছয় হাঁকান তিনি। তবে ডেসকাটে ১২ বলে ৪টা ছয় হাঁকিয়ে ২৭ রান করে রান আউট হন। আর ৪৩ বলে ৫৫ রান করে রাহীর বলে ফিরে যান চালর্স।

তবে শেষ দিকে ক্রিশ্চিয়ান জঙ্কারের ব্যাটিংয়ে বড় সংগ্রহ পায় রাজশাহী। জঙ্কার ১৭ বলে ৩৭ রান করে ডেলর্পোডের বলে ফিরে যান আর রাব্বি করেন ১ বলে ১ রান। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৯৮ রান করেছে রাজশাহী।

দলের এই বিপদের মুহুর্তে ভাইকিংসের অনেক ভক্তইমনে করছেন আশরাফুলকে আবার দলে নেয়া উচিত,হয়ত তিনি তার ব্যাটিং কারিশমা দেখিয়ে দলকে বিপদ থেকে তুলে আনতে পারবেন।