১৬, জানুয়ারী, ২০১৯, বুধবার | | ৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০

কামারখন্দে চক শাহবাজপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় চলে সভাপতির ইচ্ছায়

আপডেট: জানুয়ারি ১৪, ২০১৯

কামারখন্দে চক শাহবাজপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় চলে সভাপতির ইচ্ছায়

এম এ মালেক, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার ঝাঐল ইউনিয়নের ৬১নং চক শাহবাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চলে সভাপতির ইচ্ছায় এমন অভিযোগ ওঠেছে স্থানীয় মহলে। শুধু তাই নয় নিয়মিত প্রধান শিক্ষক ও সহকারি শিক্ষকগন সরকারি বিধিমালা না মেনে নিজ খেয়াল খুশি মত বিদ্যালয়টি ছুটি দিয়ে থাকেন।

প্রাথমিক শিক্ষা ও অধিদপ্তর কর্তৃক বিদ্যালয় গুলোর ক্লাস অনুমোদিত সময় সূচি সকাল ৯.৩০ মিনিট হতে ৪.১৫ পর্যন্ত থাকলে ও সেই আদেশের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখাচ্ছেন অত্র প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি এ্যাড. শাহ আলম ও প্রধান শিক্ষিকা মোছাঃ আমিনা খাতুন। নিয়ম অনুযায়ী সকাল ৯টায় সকল শিক্ষক উপস্থিত থাকার কথা থাকলে ও বিদ্যালয়লের প্রায় শিক্ষকগন প্রায় দিন আনুমানিক সকাল ১০.৩০ মিনিটে দিকে আগমন করেন এবং ৩ টার দিকে প্রস্থান করে দৈনিক শিক্ষক হাজিরা খাতায় ৪.৩০ মিনিট লিখে রাখেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় কয়েক জন অভিভাবক বলেন, আমাদের ছেলে মেয়েরা সঠিক পাঠদান থেকে বঞ্চিত হচ্ছে যার ফলে ফলাফল অত্যান্ত হচ্ছে। স্কুল ৪.৩০ মিনিট পর্যন্ত খোলা রাখার নিয়ম থাকলে প্রায় সময় দুপুর-৩ টার দিকেই বিদ্যালয় ছুটি দিয়ে সকল শিক্ষকরা চলে যান।

সোমবার (১৪ জানুযারি) স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে ৩.৩০ মিনিটের দিকে সরজমিনে গেলে বিদ্যালয়টি বন্ধ পাওয়া যায়। সংবাদকর্মীদের দেখে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে বলেন,এই স্কুলের শিক্ষকদের সস্পর্কে লেখালেখি করে কোন লাভ নেই,এদের হাত অনেক লম্বা। তাদের খেয়াল খুশিমত ছুটি দিবে তাতে কারো কিছু করা নাই।
ঠিক সেই সময় কয়েক জন ছাত্র-ছাত্রীকে স্কুল মাঠে খেলা করতে দেখা যায়। স্কুল বন্ধ হয়েছে কখন এ প্রশ্নের জবাবে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা বলেন,প্রতিদিন ৩ টার দিকে স্কুল বন্ধ করে।

উপস্থিত স্থানীয়রা আরও বলেন,প্রতিষ্ঠানে প্রধান শিক্ষকসহ আরও চারজন সহকারি শিক্ষক রয়েছে যারা সপ্তাহে ৭ দিনের মধ্যে ৪ দিন স্কুল আসে না। কোন কোন শিক্ষকরা পুরো সপ্তাহের স্বাক্ষর ১ দিনে করিয়া রাখে। এ যেন এটা দেখার কেউ নেই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক আ’লীগের নেতা বলেন,বিভিন্ন অনিয়মের মাধ্যমে এই চলে প্রতিষ্ঠানটি অথচ শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়নের লক্ষে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষকদের নানাবিদ সুযোগ সুবিধা দিলেও শিক্ষকদের গরিমশির কারণে ভেঙ্গে যাচ্ছে শিক্ষা ব্যবস্থা ।

এ বিষয় অত্র বিদ্যালয়ের সভাপতি এ্যাড. শাহ আলমের সাথে কথা হলে তিনি সিরাজগঞ্জ জজ কোর্ডের পিপি পরিচয়ে বলেন,আমার স্কুল কখন খোলা থাকবে আর কখন বন্ধ হবে সেটা একান্ত আমার ব্যাপার। আমি প্রতিষ্ঠানের সভাপতি আমার ইচ্ছে মতোই প্রতিষ্ঠান চলবে।

অপর দিকে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মোছাঃ আমিনা খাতুনের সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে অত্র প্রতিষ্ঠানের সভাপতি এ্যাড. শাহ আলমের সাথে কথা বলতে বলেন।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার (চলতি দায়িত্ব) মো.মোয়াজেম হোসেন এর সাথে মুঠো ফোনে কথা হলে তিনি জানান,বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। এবং যদি ঘটনার সত্যতা মেলে তাহলে অবশ্যই তাহাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের প্রতি স্থানীয় অভিভাবকদের দাবী সরকারি নিয়ম মেনেই যেন প্রতিষ্ঠানটি পরিচালনা করা হয়।