১৬, জানুয়ারী, ২০১৯, বুধবার | | ৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০

হুমকির মুখে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব পাড়

আপডেট: জানুয়ারি ১৪, ২০১৯

হুমকির মুখে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব পাড়

টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ নিষেধাজ্ঞার কোন তোয়াক্কা করছে না করে টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতাকর্মীদের সহযোগিতায় বঙ্গবন্ধু সেতু এলাকার যমুনা নদী থেকে বালু খেকোরা অবাধে বালু উত্তোলন করছে। ফলে বঙ্গবন্ধু সেতু হুমকির সম্মুখীন হয়ে পড়েছে। এদিকে বঙ্গবন্ধু সেতুর দুই তীরে আট কিলোমিটারের মধ্যে কোনো প্রকার বালু উত্তোলন নিষিদ্ধ থাকলেও বালু খেকোরা স্থানীয়রা জানায়, সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্বপাড়ে যমুনার পূর্ব পাশে কালিহাতী অংশে পৃথক সিন্ডিকেট করে ২টি ঘাট তৈরি করে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবাধে বালু উত্তোলন চলছে।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাঝে মাঝে অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হলেও থামছে না বালু উত্তোলন ও সরবরাহ। এতে দেশের বৃহত্তর স্থাপনা বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্বপাড় হুমকিতে পড়েছে এবং বালুমহালের ভাগ-বাটোয়ারা ও নতুন বালুঘাট তৈরি নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বারবার নিষেধ করা সত্ত্বেও বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্বপাড়ের কালিহাতী উপজেলায় পৃথক দুটি সিন্ডিকেট অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও পরিবহন করছে। এদের মধ্যে পূর্ব অংশে কালিহাতী উপজেলার ২টি স্থানে স্থানীয় প্রভাবশালী নেতা গোহালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হযরত আলী তালুকদার, ইউপি সদস্য আ. হাই আকন্দ (ছোট হাই) ও ইউপি সদস্য সুলতান অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও সরবরাহ করছে।

সোমবার (১৪ জানুয়ারি) সরেজমিন দেখা যায়, এই দুই ঘাটে ধলেশ্বরী নদীতে অবৈধভাবে বাধ তৈরি করে অবাধে বালু বিক্রি চলছেই। উত্তোলন করা বালুভর্তি ট্রাকগুলো সেতু সংলগ্ন গ্যাসফিল্ডের ওপর দিয়ে প্রতিনিয়ত যাতায়াত করছে। এতে দুর্ঘটনার আশঙ্কাও দেখা দিয়েছে।

এ বিষয়ে কালিহাতী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিত দেবনাথ বলেন, অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও বিক্রির কোন নিয়ম নেই তথাপি কেউ যদি একাজ করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।