১৭, জুলাই, ২০১৮, মঙ্গলবার | | ৪ জ্বিলকদ ১৪৩৯

ভোলায় শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় দুর্নীতি ও অনিয়মের কারণে ৮৩ জন আটক, ৬৬ জনকে সাজা প্রদান

আপডেট: মে ১১, ২০১৮

ভোলায় শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় দুর্নীতি ও অনিয়মের কারণে  ৮৩ জন আটক, ৬৬ জনকে সাজা প্রদান

ভোলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় মোবাইল ফোন ব্যবহারসহ নানা অনিয়মের আশ্রয় নেয়ায় ৮৩ জনকে আটক করা হয়েছে। এদের মধ্যে ১৭ জনকে জরিমানা ও ৬৬ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়েছে।

এর মধ্যে এক শিক্ষককে ৭ দিনের জেল দিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। শুক্রবার জেলা সদরের ২৩ কেন্দ্রে ১১ হাজার পরীক্ষার্থী অংশ নেন।

পুলিশ জানায়, নিয়োগ পরীক্ষা সামনে রেখে আগে থেকেই প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে প্রশ্ন ফাঁস ও উত্তর পাঠানোর উদ্দেশে ঢাকা থেকে একটি চক্র মোটা অঙ্কের চুক্তিতে ভোলায় অবস্থান নেয়।

বৃহস্পতিবার ওই চক্রের ৩ সদস্যকে একটি হোটেল থেকে ডিবি পুলিশ আটক করে। আটককৃতরা হলো ফরহাদ হোসেন, নুরুল আমিন ও হাবিবুর রহমান। তাদের বাড়ি তজুমদ্দিন ও চরফ্যাশন উপজেলায় হলেও তারা ঢাকায় থাকে।

আটকের বিষয়টি প্রশাসককে জানানো হলে রাতেই তিনি কেন্দ্রের দায়িত্বরত ম্যজিস্ট্রেটদের সতর্ক করে দেন।

শুক্রবার পরীক্ষা চলাকালে ১৭ কেন্দ্র থেকে ৭০ জনকে আটক করা হয়। এরপর জেলা প্রশাসক কার্যালয় ও থানায় নেয়া হলে তারা কান্নায় ভেঙে পড়ে।

এ সময় ৩ নারী পরীক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়ে। আটককৃতদের ছাড়িয়ে নেয়ার জন্য স্বজনরা রাজনৈতিক নেতাদের কাছে তদবির করেও ব্যর্থ হন। জেলা প্রশাসক জানান, অনৈতিক কাজে জড়িতদের ছাড় দেয়ার সুযোগ নেই।