২৩, অক্টোবর, ২০১৮, মঙ্গলবার | | ১২ সফর ১৪৪০

বিষ মেশানো দুধ খেয়ে আরোগ্যের পর আবার আক্রান্ত হচ্ছেন মানুষ

আপডেট: মে ১১, ২০১৮

বিষ মেশানো দুধ খেয়ে আরোগ্যের পর আবার আক্রান্ত হচ্ছেন মানুষ

দুধে মিশছে বেশ কয়েক রকমের ক্ষতিকারক পদার্থ। এই ঘটনা আগেও সামনে এসেছিলো। এবার সামনে এলো এর থেকে হওয়া কিছু রোগের কথা যেগুলিটে আক্রান্ত হলে পুরোপুরি সেরে উঠছে না রোগী। চিকিত্‍সায় সাময়িকভাবে সুস্থ হয়ে উঠলেও, ফের ওই রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন রোগী। বিপাকে রাজ্যের বহু মানুষ। উদ্বিগ্ন চিকিত্‍সকরাও।

কিন্তু, কেন এমনটা হচ্ছে? চিকিত্‍সকদের বক্তব্য, প্রধান কারণ খাবারে ভেজাল। খাবারে ফরমালিনের মতো রাসায়নিক উপস্থিতি ক্ষতি করছে কিডনি ও লিভারের। সেরে ওঠার পর রোগী যখন সেই ভেজাল খাবার খাচ্ছেন, তখন ফের অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। কারণ ফরমালিনের মেশানো খাবারের মাধ্যমে মানবশরীরে ঢুকছে বিষ। সেই বিষের কোনও প্রতিষেধক নেই। তাই অসুখও পুরোপুরি সারছে না।

ভাগাড় কাণ্ডের পর থেকে মাংসতে অনীহা তৈরি হয়েছে মানুষের। তার বদলে মাছ বা নিরামিষ খাচ্ছেন মানুষ। কিন্তু মাছেও মিশছে ফরমালিন। মাছকে সতেজ রাখতে ব্যবহার করা হচ্ছে ফরমালিন। এরপরে থাকছে গরুর দুধ। দুধেও যে মিশছে বিষাক্ত রাসায়নিক! দুধ টাটকা রাখতে দুধে ফরমালডিহাইড নামে এক ধরণের রাসায়নিক মেশানো হয়। বিশেষজ্ঞদের দাবি, মৃতদেহে পচন রুখতে যে রাসায়নিক ব্যবহার করা হয়, তার জলীয় দ্রবণ এই ফরমালডিহাইড।

চিকিত্‍সকরা জানিয়েছেন, ফরমালডিহাইড লিভার ও কিডনির পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকর। এই বিষাক্ত রাসায়নিক শরীরে প্রবেশ করলে, লিভারের কোষগুলি নষ্ট হয়ে যায়। কিডনিতেও গুরুতর সমস্যা হতে পারে।