২২, অক্টোবর, ২০১৮, সোমবার | | ১১ সফর ১৪৪০

নানা পাটেকরের ‘নারকো ও লাই ডিটেকটর টেস্ট’র দাবি তনুশ্রীর

আপডেট: অক্টোবর ১৪, ২০১৮

নানা পাটেকরের ‘নারকো ও লাই ডিটেকটর টেস্ট’র দাবি তনুশ্রীর

যৌন হেনস্থার দায়ে অভিযুক্ত বলিউডের প্রভাবশালী অভিনেতা নানা পাটেকর-সহ অন্য অভিযুক্তদের লাই ডিটেকটর টেস্ট, নারকো ও ব্রেইন ম্যাপিং করানোর দাবি জানিয়েছেন তনুশ্রী দত্ত। মুম্বাইয়ের ওসিয়ারা পুলিশের কাছে আইনজীবী নিতিন সতপুতের মাধ্যমে এই আবেদন জানিয়েছেন ‘আশিক বানায়া আপনে’ খ্যাত এ অভিনেত্রী।

তনুশ্রীর অভিযোগ, ২০০৮ সালে ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির সেটে শ্যুটিং চলাকালীন নানা পাটেকর তাকে যৌন হেনস্থা করেছেন। যদিও নানা তা অস্বীকার করেছেন। নানা বলেছেন, ঘটনাটি ১০ বছর আগের। তখনই এ ব্যাপারে বলেছিলাম। এতবছরে মিথ্যা তো আর বদলাবে না।

এরইমধ্যে নানা পাটেকর, সেই ছবির নৃত্য নির্দেশক গণেশ আচার্য, প্রযোজক সামি সিদ্দিকি ও পরিচালক রাকেশ সারাঙের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৫৪ ধারা (জোর করে মহিলার সম্মানহানি) ও ৩৫৯ ধারায় (শব্দ, অঙ্গিভঙ্গি বা ইঙ্গিতের মাধ্যমে মহিলার সম্মানহানি) মামলা করেছে ওসিয়ারা পুলিস।

তনুশ্রীর আইনজীবী নিতিন সতপুতে শনিবার জানিয়েছেন, নানা পাটেকর, গণেশ আচার্য, সিদ্দিকি ও সারাঙ-সহ মিথ্যা সাক্ষীদের গ্রেফতারি চাইছেন তার মক্কেল। তনুশ্রী দত্ত আবেদনে উল্লেখ করেছেন, অভিযুক্তরা উচ্চবিত্ত ও প্রভাবশালী, তাদের রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতাও আছে। ফলে সাক্ষীদের উপরে চাপ সৃষ্টি অথবা ভয় দেখাতে পারেন তারা।

নিতিন সতপুত আরও বলেছেন, ২০০৮ সালের ঘটনার অনেকেই সাক্ষী। তবে অভিযুক্তরা প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে সামনে আসতে পারছেন না। অভিযুক্তদের গ্রেফতারের পরই তারা জবানবন্দি দিতে ভরসা পাবেন।

নানার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগে মহারাষ্ট্রের মহিলা কমিশন ও কর্মস্থলে মহিলাদের যৌন হয়রানি সংক্রান্ত বিভাগের ডেপুটি জেলাশাসকের দ্বারস্থ হয়েছেন তনুশ্রী দত্ত। সূত্র: জি নিউজ