১৮, অক্টোবর, ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ৭ সফর ১৪৪০

জয়ের কাছে পৌঁছে গেছে বাংলাদেশ

আপডেট: অক্টোবর ৪, ২০১৮

জয়ের কাছে পৌঁছে গেছে বাংলাদেশ

আবারও এশিয়া কাপের মঞ্চে ভারতের মুখোমুখি বাংলাদেশ। লড়াইটা ফাইনালে ওঠার। ফাইনালের মিশনে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামে ভারত। বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ১৭২ রানেই গুটিয়ে যায় ভারত । ১৭৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারালেও পরে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ।

শেষ খবর পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪০.৫ ওভারে ৭ উইকেটে ১৫৫ রান। জয়ের জন্য ৫৫ বলে ৩ উইকেটে দরকার ১৮ রান।
ফাইল ছবি

এই লড়াইয়ের শুরুতে ভারতীয় যুবাদের ভালোভাবেই চেপে ধরে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দল। রিশাদ-হৃদয়দের বোলিং তোপে স্কোরকার্ডে ৭৭ রান যোগ করতেই প্রথম ৫ উইকেট হারায় ভারতের যুবারা।
শেষ দিকে মিডল ও লোয়ার অর্ডারের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে অবশ্য শুরুর সেই চাপ ভালোভাবে কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হয়েছে ভারত। ইনিংসের তিন বল বাকি থাকতে গুটিয়ে যাওয়ার আগে স্কোরকার্ডে ১৭২ রান জমা করেছে তারা। ফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করতে বাংলাদেশের প্রয়োজন ১৭৩ রান।

৪ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার মিরপুরে শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে চাপের মুখে পড়ে ভারত। ৩ রানেই প্রথম উইকেট হারায় তারা। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে শরিফুল ইসলামের বলে উইকেটের পেছনে থাকা আকবর আলীকে ক্যাচ দেন দেবদূত পাদিকাল। তিনি করেন মাত্র ১ রান।

এরপর অবশ্য অনুজ রাওয়াতের সঙ্গে ৬৬ রানের জুটি গড়ে সেই চাপ কাটিয়ে ওঠেন অপর ওপেনার ইয়াশাভি জইশওয়াল। দলীয় ৬৯ রানের সময় ৩৫ রান করা রাওয়াতকে ফিরিয়ে দিয়ে জুটি ভাঙেন অধিনায়ক তৌহিদ হৃদয়। এরপর আবারও ভারতকে কোনঠাসা করেন বাংলাদেশি বোলাররা। দুই রানের ব্যবধানে অধিনায়ক সিমরান সিংকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন রিশাদ হোসেন।

এরপর স্কোরকার্ডে ৬ রান যোগ করতেই আরও দুই উইকেট হারায় ভারত। হৃদয়ের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হয়ে সাজঘরে ফেনে ইয়াশ রাঠোর। পরের ওভারেই ৩৭ রান করা জইশওয়ালকে (৩৭) বোল্ড করে সাজঘরে পাঠান লেগস্পিনার রিশাদ। এরপর ভারতকে ১০০ রানের কোটা পার করান আইয়ূশ বাদোনি ও সমীর চৌধুরী। ষষ্ঠ উইকেটের জুটিতে দুজন মিলে যোগ করেন ৫৯ রান, দলকে গড়ে দেন লড়াকু সংগ্রহের ভিত। মূলত এই জুটিতেই ঘুরে দাঁড়ায় ভারত।

৪০তম ওভারে আইয়ূশ বাদোনিকে ২৮ রানে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন মিনহাজুর রহমান। ৪৫ তম ওভারে শরিফুলের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হয়ে মাঠ ছাড়েন সমীর। ততক্ষণে স্কোরকার্ডে ১৫০ রান যোগ করে ফেলেছে ভারত। বাকি চার ব্যাটসম্যান মিলে এনে দিয়েছেন আরও ২২ রান। অজয় গঙ্গাপুরাম ১৭ ও হার্শ তায়েগি করেন ৮ রান।

সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের সফল বোলার শরিফুল ইসলাম। ১০ ওভারে ১ মেডেনসহ ১৬ রান দিয়ে ৩ উইকেট দখল করেন তিনি। মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী, রিশাদ হোসেন ও অধিনায়ক তৌহিদ হৃদয় নিয়েছেন দুটি করে উইকেট। এ ছাড়া এক উইকেট নিয়েছেন মিনহাজুর রহমান।