১৪, ডিসেম্বর, ২০১৮, শুক্রবার | | ৫ রবিউস সানি ১৪৪০

ইবিতে ছাত্র মৈত্রীর ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উৎযাপিত

আপডেট: ডিসেম্বর ৬, ২০১৮

ইবিতে ছাত্র মৈত্রীর ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উৎযাপিত

ইবি প্রতিনিধিঃ নানা আয়োজনে গৌরব আর ঐতিহ্যের ৩৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করেছে বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রী ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখা।

‘শ্রমজীবী জনতার সাথে একাত্ব হও’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে দিবসটির প্রথম প্রহরে রাত ১২টা ১মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা।

এছাড়া আজ বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রমৈত্রীর উদ্যোগে দলীয় টেন্ট থেকে এক আনন্দ মিছিল শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে মিছিলটি শহীদ মিনারে এসে ফুলেল শ্রদ্ধা জানায়।
পরবর্তীতে র‍্যালিটি দলীয় টেন্টে এসে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্র মৈত্রীর সাংগঠনিক সম্পাদক শামিমুল ইসলাম সুমনের উপস্থাপনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন,ছাত্র মৈত্রীর কেন্দ্রীয় সদস্য ও ইবি শাখার সভাপতি মোরশেদ হাবীব, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রউফ।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন ইবি ছাত্রমৈত্রীর অর্থ সম্পাদক শহিদুল্লাহ,দপ্তর সম্পাদক মুতাসিম বিল্লাহ পাপ্পু, সাহিত্য সম্পাদক সবুজ হোসেন,তথ্য প্রযুক্তি সম্পাদক আখতার হোসেন আজাদ,কার্যনির্বাহী সদস্য আসমা খাতুনসহ আরো অনেকে।

ইবি ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি মোরশেদ হাবীব তার বক্তব্যে বলেন,ছাত্র মৈত্রী কেবল একটি রাজনৈতিক সংগঠন নয়।এটি ছাত্রদের নায্য অধিকার আদায়ে রাজপথে অগ্রনী ভূমিকা পালনকারী সংগঠন।তিনি আরো বলেন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদ,আবাসন সংকট,পরিবহন সংকটসহ বিভিন্ন আন্দোলনে অগ্রনী ভূমিকা পালন করেছে।তিনি অবিলম্বে ইকসু নির্বাচনের দাবি জানান।

প্রসঙ্গত কেক কাটার মাধ্যমে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ সমাপ্ত হয়।

উল্লেখ্য শিক্ষা,কাজের সংগ্রাম,সাম্প্রদায়িকতা ও সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী লড়াইয়ের প্রতিজ্ঞা নিয়ে ৩৮ বছর আগে জন্ম হয়েছিল বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর।প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে এ সংগঠণটির নেতা কর্মীরা যে কোন আন্দোলনে ভূয়সী ভূমিকা রেখে চলেছে বলে জানা যায়।