১৪, ডিসেম্বর, ২০১৮, শুক্রবার | | ৫ রবিউস সানি ১৪৪০

প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইলেন গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান

আপডেট: ডিসেম্বর ৬, ২০১৮

প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইলেন গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান

রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় শিক্ষার্থীদের ৬ দফা দাবি মেনে না নিলে ক্লাস-পরীক্ষাসহ স্কুলের কোনও কার্যক্রমে যোগ দেবে না বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় স্কুলের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষে এ ঘোষণা দেয় স্কুলের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী আনুষ্কার রয়।

আর এ ঘোষণার পর পরই অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় প্রকাশ্যে ক্ষমা চেয়েছেন স্কুলের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান গোলাম আশরাফ তালুকদার। তিনি বলেছেন, ‘আমাদের একজন শিক্ষার্থীর অকাল মৃত্যুতে আমরা সহমর্মিতা প্রকাশ করছি, ক্ষমা চাচ্ছি।’ এ সময় তিনি শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরার আহ্বান জানান।

বৃহস্পতিবার দুপুরে স্কুলের সামনে গণমাধ্যমকর্মীদের মাধ্যমে তিনি এ ক্ষমা প্রার্থনা করেন। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ৬টি দাবির মধ্যে এটি ছিল একটি দাবি।

তবে, আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী শিক্ষার্থী আনুষ্কার রয় জানায়, ‘শুরু থেকেই আমরা ৬টি দাবি জানিয়ে আসছি। এর মধ্যে তিনটি দাবি বাস্তবায়ন করতে দীর্ঘ সময়ের প্রয়োজন। বাকি তিন দাবি যেকোনও মুহূর্তে বাস্তবায়ন করা সম্ভব। বাস্তবায়নযোগ্য দাবিগুলো দ্রুত কার্যকর করতে হবে। আর যেগুলোর জন্য দীর্ঘমেয়াদি সময়ের প্রয়োজন সেগুলোর বিষয়ে আমাদের লিখিতভাবে অঙ্গীকার দিতে হবে।’

শিক্ষার্থীদের অপর দাবি গভর্নিং বডির সকল সদস্যের পদত্যাগের বিষয়ে জানতে চাইলে গোলাম আশরাফ তালুকদার বলেন, ‘প্রতিষ্ঠানের বৃহৎ স্বার্থে যদি আমার পদত্যাগ করতে হয় তাহলে অবশ্যই করবো। তাদের দাবির বিষয়টি আমি কমিটির বৈঠকে তুলবো।’

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের ৬টি দাবির মধ্যে অধিকাংশই বাস্তবায়ন হয়েছে। আমাদের গভর্নিং বডির সদস্যসচিব স্কুলের অধ্যক্ষ মামলার আসামি থাকায় আমরা তাকে পাচ্ছি না। তার এই পদে অন্য একজনকে দায়িত্ব দিয়ে কমিটির মিটিং আহ্বান করবো। সেখানে বাকি সিদ্ধান্ত হবে।’

এ সময় তিনি শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘আমি বলবো শিক্ষার্থীরা, তোমরা ক্লাসে ফিরে এসো।’

এর আগে শিক্ষার্থীদের পক্ষে আনুষ্কার রয় জানায়, ‘আমাদের ৬টি দাবির মধ্যে অন্যতম ছিল প্রিন্সিপাল ও গভর্নিং বডির চেয়ারম্যানসহ সব সদস্যকে পদত্যাগ করতে হবে। এই দাবি এখনও কার্যকর করা হয়নি।’ অরিত্রীর আত্মহত্যায় অভিযুক্ত শিক্ষিকা হাসনা হেনার গ্রেফতার প্রসঙ্গে এই শিক্ষার্থী জানায়, ‘আমরা অবশ্যই সন্তুষ্ট। তবে প্রিন্সিপাল ছাড়া অন্য শিক্ষকদের বিষয়ে আমাদের কোনও দাবি ছিল না। যা হচ্ছে সেটা আইনের মাধ্যমে হচ্ছে।’