শেরপুরে বৃদ্ধাকে গলাকাটে হত্যা

জেলা শহরের পৌরসভার পশ্চিম গৌরীপুর মহল্লায় ছেলের বাসায় ফরিদা বেগম (৬০) নামে এক বৃদ্ধাকে গলাকেটে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তদল। ২১ আগস্ট বুধবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে নিজ শয়ন কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। ফরিদা বেগম পশ্চিম গৌরীপুর এলাকার মৃত আব্দুস সালামের স্ত্রী।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ফরিদা বেগম প্রতিদিনের মত বাসায় একা অবস্থান করছিল। নিহতের নাতি শিহাব শহরের সজবরখিলা টিভিএস শোরুমে কাজ শেষে রাতে বাড়ী ফিরে দাদিকে অনেক ডাকাডাকি করলেও ঘরের দরজা না খোলায় তালা ভেঙ্গে ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে। এসময় দাদি ফরিদা বেগমের গলাকাটা মৃতদেহ দেখতে পায়। পরে তার আত্মচিৎকারে প্রতিবেশীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ফরিদা বেগমের গলাকাটা মৃতদেহ বিছানায় পড়ে থাকতে দেখেন এবং ঘরের কাপড়-চোপড়সহ সব কিছু ছড়ানো ছিটানো দেখতে পায়। পরে শেরপুর সদর থানায় খবর দেয়া হয়।

খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ আমিনুল ইসলাম ও সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং নিহত ফরিদা বেগমের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান।

নিহতের ছেলে খন্দকার শামীম হোসেন বার্তা বাজারকে বলেন, শেরপুর শহরের সজবরখিলা এলাকায় টিভিএস মোটরসাইকেল শোরুমে কাজ শেষে তার ভাতিজা শিহাব বাসায় গিয়ে দরজা খোলার জন্য তার মাকে (সিহাবের দাদীকে) ডাকাডাকি করে। দরজা না খোলায় এবং সারাশব্দ না পাওয়ায় পাশের বাসা থেকে হাতুড়ি এনে তালা ভেঙ্গে ভিতরে ঢুকে তার মায়ের (সিহাবের দাদীর) মৃতদেহ দেখতে পান।

এঘটনায় সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, নিহত ফরিদা বেগমের মৃত্যুর বিষয়টি এখনো রহস্যজনক তবে ঘটনাটি উদঘাটনের জন্য তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। ২২ আগস্ট বৃহস্পতিবার সকালে ফরিদা বেগমের মৃতদেহের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি শেষে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এব্যাপারে শেরপুর সদর থানায় নিহত ফরিদা বেগমের পরিবারের পক্ষ থেকে একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

বার্তাবাজার/এস.আর

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর