নিজের জীবন বাজি রেখে বাঁচালেন স্ত্রীর শেষ স্মৃতি!

স্ত্রী মারা গেছেন আগেই। তার স্মৃতি হিসেবে ছিল কেবল একটি মেজারমেন্ট টেপ। এটাই আঁকড়ে ধরে রেখেছিলেন ৪১ বছর বয়সী এক ব্যক্তি। সারাক্ষণ সঙ্গেই রাখতেন স্ত্রীর দেওয়া উপহারটি। হঠাৎ একদিন সেই টেপটি ব্রিজের ওপর থেকে হাত ফসকে নিচে পড়ে যায়।

এসময় কোনো উপায় না দেখে স্ত্রীর শেষ স্মৃতি বাঁচাতে নিজেই ব্রিজ থেকে লাফ দেন পানিতে। ঘটনাটি ঘটেছে থাইল্যান্ডে। চনবুড়ির বাসিন্দা ওই ব্যক্তির নাম জানা যায়নি। তবে তিনি পেশায় কামার ছিলেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম মিরর ও মাদারশিপের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ১৩ আগস্ট স্ত্রীর দেওয়া উপহার মেজারমেন্ট টেপটি নিয়ে সমুদ্রের কাছে ব্রিজ ধরে হাঁটছিলেন ওই ব্যক্তি। হঠাৎ টেপটি হাত ফসকে পড়ে যায় কাদাভরা জলাশয়ে। স্ত্রীর শেষ স্মৃতিটুকু রক্ষায় সঙ্গে সঙ্গেই ঝাঁপিয়ে পড়েন তিনি।

তবে ভাগ্য ভালো, অন্য এক ব্যক্তি দেখেন একজনের টুপি আর জুতো পড়ে আছে ব্রিজের ওপর। তিনি দ্রুত নিচের দিকে তাকিয়ে ওই ব্যক্তিকে কাদায় আটকে থাকতে দেখেন।

পরে বিষয়টি দ্রুত সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা দড়ি দিয়ে টেনে লোকটিকে উদ্ধার করেন। অল্পের জন্য প্রাণ রক্ষার পর লোকটিকে জিজ্ঞাসা করা হলো, আপনি এত ঝুঁকি নিয়ে নিচে ঝাঁপ দিলেন কেন? তিনি বলেন, ‌‘আমার হাতে যে টেপটি রয়েছে, এটি মহামূল্যবান। আমার স্ত্রীর দেওয়া শেষ উপহার।’

৪১ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি আরও বলেন, ‘সে (স্ত্রী) মারা যাওয়ার আগে বলে গিয়েছিল, আমি যেন এটি যত্ন করে রাখি। তাকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি রাখতেই নিচে ঝাঁপ দেই।’

প্রয়াত স্ত্রীর প্রতি এমন ভালোবাসা অবাক করেছে সবাইকে। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে লাফ দেওয়ায় অনেকে তার সমালোচনাও করেছেন। তবে বেশিরভাগ মানুষই তার এমন ভালোবাসার প্রশংসা করেছেন।

বার্তাবাজার/কেএ

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর