১৪, ডিসেম্বর, ২০১৮, শুক্রবার | | ৫ রবিউস সানি ১৪৪০

বিয়ের আগে ওজন কমানো নিয়ে সতর্কতা

আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০১৮

বিয়ের আগে ওজন কমানো নিয়ে সতর্কতা

হেমন্তের এই শেষ লগ্নে শীত প্রায় চলেই এসেছে। আর সেই সঙ্গে শুরু হয়ে গেছে বিয়ের ধুম। সারা বছর বিয়ে অনুষ্ঠান থাকলেও এই সময়টাতে বিয়ের অনুষ্ঠান বেশি হয়।

বিয়ে মানেই আনন্দ আর খাওয়া-দাওয়া। এত আনন্দের মাঝেও অনেক সময় বিয়ের বর আর কনের মধ্যে ওজন কমানো বা ওজন বাড়ানো নিয়ে দেখা দেয় দুশ্চিন্তা। ওরাই তো বিয়ের মধ্যমনি। তবে ওজন নিয়ে দুশ্চিন্তা করে নিজের চেহারার বারোটা না বাজানোই ভাল।

ওজন কমাতে অস্বাস্থ্যকর উপায় অবলম্বন কেন?

বিয়ের খবর শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দ্রুত ওজন কমাতে নানা অস্বাস্থ্যকর উপায় অবলম্বন করে থাকেন। যেমন ক্রাশ ডায়েট বা তথাকথিত বিভিন্ন ওষুধ যা শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর। তাই বর আর কনেকে বলবো ওজন কমাতে এত অস্থির না হয়ে, দুশ্চিন্তা না করে সঠিক নিয়মে, সঠিক ডায়েট ফলো করে ওজন কমানোর চেষ্টা করা উচিত।

দ্রুত ওজন কমানোতে স্বাস্থ্যঝুঁকি

দ্রুত ওজন কমানো স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর তাই মনে রাখতে হবে অল্প সময়ে সঠিক ডায়েট ফলো করে যতটুকু ওজন কমনো যায় ততটুকুই ভাল।

এক্ষেত্রে ওজন কমাতে বর আর কনেকে আমার পক্ষ থেকে উপদেশ থাকবে ওজন কমাতে বাইরের খাবার এড়িয়ে চলতে হবে যেহেতু এই সময় বিয়ের কেনাকাটার জন্য বাইরে থাকতে হয় বেশিরভাগ সময় তাই বাসায় তৈরি ছোটখাটো খাবার সঙ্গে করে নিয়ে যেতে পারেন।

আর বাইরে এমন খাবার খেতে হবে যার ক্যালরি খুব কম যেমন- স্যুপ, টাটকা ফলের রস, ফ্রুট সালাদ ইত্যাদি। বাইরের ফাস্টফুড, ড্রিংস এগুলো খাওয়া যাবে না। বাসায় খাবারগুলো হতে হবে চিনি ছাড়া এবং কম তেলের খাবার।

এখন প্রচুর রঙিন শাক-সবজি পাওয়া যায় যা প্রতিদিন খাদ্য তালিকায় রাখতে হবে। আর সেই সঙ্গে খেতে হবে প্রচুর পানি। এতে করে ওজন যেমন কমবে তেমনি ত্বকটাও বেশ সুন্দর হবে।

সাধারণত বিয়ের কথাবার্তা শুরু থেকে অনুষ্ঠান পর্যন্ত প্রায় একমাস সময় পাওয়া যায়। এসময়টাকে কাজে লাগাতে হবে ওজন কমাতে তবে কখনোই তাড়াহুড়া করবেন না।

আর যেসব বর-কনে ওজন বাড়াতে চান তারাও তাড়াতাড়ি ওজন বাড়ানোর কোনো ধরনের উপায় অবলম্বন না করে পুষ্টিকর এবং উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার দুই ঘন্টা পর পর খাবেন। যেমন খাবার তালিকায় প্রতিদিন -ডিম, পাকা কলা,কিসমিস, খেজুর, দুধ বা ছানা, দুই বেলা মাছ বা মাংস ইত্যাদি রাখবেন।

ওজন বাড়াতে যা করবেন না

কখনোই ওজন বাড়াতে তেলে ভাজা খাবার, ফাস্টফুড, ড্রিংস এগুলো অতিরিক্ত পরিমাণে খাওয়া উচিত নয়।

সবশেষে বলতে চাই ওজন কমানো বা বাড়ানো কোনটাই খুব দ্রুত করা সম্ভব নয় তাই সময় থাকতে এ বিষয়ে সচেতন হোন। নিজেকে আদর্শ ওজনে নিয়ে আসুন। সব রকম পোশাকেই আপনাকে দেখাবে আকর্ষণীয়। আর সেই সঙ্গে বিভিন্ন রোগ থেকে তো দূরে থাকবেন নিশ্চিত।