দিনমজুর বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করলো মেয়ে

সাভারের আশুলিয়ার ইউসুফ মার্কেট এলাকায় দিনমজুর বাবাকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে মেয়ের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় মেয়েকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে বরগুনা সদর থানা পুলিশ। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি। এ বিষয়ে কোনো কথা বলতে রাজি হয়নি পুলিশ।

যদিও নিহতের স্বজনরা বলছেন, পারিবারিক কলহের জেরেই বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে মেয়ে।

নিহতের স্বজনরা জানান, ঢাকার সাভারের আশুলিয়ার ইউসুফ মার্কেট এলাকায় হানিফ মিয়ার বাসায় ভাড়া থাকতো বরগুনা সদর উপজেলার ৬নং বুড়িরচর ইউনিয়নের মো. শহীদ খান ও তার মেয়ে হালিমা বেগম।

বুধবার রাতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাবা মেয়ের সাথে ঝগড়ার এক পর্যায়ে মেয়ে হালিমা ধারালো বটি দিয়ে বাবা শহীদ খানের মাথায় কোপ দেয়। কোন চিকিৎস্যা না নেয়ায় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মারা যায় শহীদ খান। ঘটনা ধামাচাপা দিয়ে বাড়ির মালিক হানিফ মিয়ার সহায়তায় বৃহস্পতিবার রাতে অ্যাম্বুলেন্সে করে বরগুনার বুড়িরচর গ্রামের নিজ বাড়িতে নিয়ে এসে শহিদের মরদেহ দাফন করতে চায় মেয়ে হালিমা। স্বজনরা শহীদ খানের মাথায় কোপের চিহ্ন দেখে মেয়ে হালিমাকে আটক করে পুলিশে খবর দিলে ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ।

অভিযুক্ত মেয়ের দাবি, তার বাবা দিনমজুর হিসেবে নির্মাণাধীন ভবনে টাইলসের কাজ করে। টাইলস পরে তার বাবার মাথায় আঘাত লেগেছে। কোথায় কাজ করতে গিয়ে আঘাত পেয়েছে সে বিষয়ে কোনো কিছুই বলতে পারেনি সে।

এ ঘটনায় ক্যামেরার সামনে কোনো কথা বলতে রাজি হয়নি পুলিশ। তবে ঘটনা বরগুনা সদর থানার আওতাধীন না হওয়ায় তাদের কিছু করার নেই বলে জানান বরগুনা সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবির মোহাম্মদ হোসেন।

নিহত শহীদ খান প্রায় দুই বছর ধরে ঢাকায় দিনমজুর হিসেবে কাজ করতেন।

বার্তাবাজার/এসআর

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর