আজ শুক্রবার রাত ৩:৫৭, ২৪শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং, ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

সহজ ম্যাচ কঠিন করে জিতল শান্ত-তানভীররা

নিউজ ডেস্ক | বার্তা বাজার .কম
আপডেট : অক্টোবর ১৯, ২০১৭ , ১১:৫২ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : ক্রিকেট,খেলাধুলা
পোস্টটি শেয়ার করুন

বৃষ্টিতে ভেস্তে গিয়েছিল প্রথম ওয়ানডে।  প্রথম ওয়ানডেতেও এমন ব্যাটিংয়ের আভাস পাওয়া গিয়েছিল। কেমন ব্যাটিং?

প্রথম ওয়ানডেতে সফরকারী আয়ারল্যান্ড ‘এ’ দলের ২৩০ রানের দেওয়া টার্গেটে বাংলাদেশ ‘এ’ দল ৩ উইকেট হারিয়ে তুলে ৫৯ রান। এরপর বৃষ্টিতে ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়। আজও মাত্র ১৯৬ রানের টার্গেটে বাংলাদেশ দল জিতেছে মাত্র ৩ উইকেটে, ২১ বল হাতে রেখে। এমন ছন্দহীন ব্যাটিংয়ে জয় ম্লান হয়ে যাওয়া স্বাভাবিক। তবুও দিন শেষে ফল নিজেদের পক্ষে আসায় খুশি শান্ত, সোহানরা।

কক্সবাজারে প্রথম ওয়ানডের মতো দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও দারুণ বোলিং করে বোলাররা। কিন্তু ব্যাটসম্যানরা ফ্লপ! অন্তত নিজেদের চিরচেনা কন্ডিশনে ১৯৬ রান তুলতে ৭ ব্যাটসম্যানের সাজঘরে যাওয়াকে ফ্লপই বলা চলে। টপ অর্ডারে শান্ত এবং মিডল অর্ডারে তানভীর ছিলেন বলে রক্ষা। নইলে বড় পরাজয় কপালে হয়ত লেখাই ছিল!

১৩ রানে উদ্বোধনী জুটি ভাঙার পর দ্বিতীয় উইকেটে অধিনায়ক শান্ত ও সাদমান ৫৬ রানের জুটি গড়েন। এরপর ৪৫ রান যোগ করতেই নেই ৫ উইকেট। শুরুটা সাদমানকে দিয়ে। ২৪ রানে সাদমানের বিদায়ের পর আল-আমিন (৬) ও নাদীফ চৌধুরী (১০) ব্যর্থতার পরিচয় দেন। ৪৪ রান করা শান্ত লড়াই করলেও ফিরে যান মুল্ডারের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে। উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান কাজী নুরুল হাসান সোহান ১ রানে স্ট্যাম্পিং হন।

১১৪ রানে ৬ উইকেট হারানো বাংলাদেশ সপ্তম উইকেটে জয়ের মূল ভিত পায়। সানজামুলকে সাথে নিয়ে একাই লড়াই করেন তানভীর। ডানহাতি তানভীর শেষ পর্যন্ত টিকে থাকলেও সানজামুল আউট হন ১৬ রানে। আবুল হাসান রাজুও শেষ দিকে ১০ রান যোগ করে জয়ের অবদান রাখেন। ৯৮ বলে ৮ বাউন্ডারিতে ৬১ রান করা তানবীর হায়দার ম্যাচসেরার পুরস্কারও জিতেন।

এর আগে সানজামুলের ঘূর্ণিতে ১৯৫ রানে শেষ হয় আয়ারল্যান্ডের ব্যাটিং। বাঁহাতি স্পিনার ৩৩ রানে নেন ৪ উইকেট। ৩ উইকেট নেন পেসার আবুল হাসান। ১টি করে উইকেট পান আবু হায়দার রনি, তানভীর হায়দার ও আল-আমিন। সফরকারীদের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৩ রান করেন সিমি সিং।

আগামী ২১ অক্টোবর একই মাঠে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। পাঁচ ম্যাচ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে নাজমুল হোসেন শান্তর দল।