চসিকে ডিজিটালাইজেশনে নতুন সংযোজন

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) রাজস্ব এবং হিসাব বিভাগের নানা কাজ অনলাইন পদ্ধতিতে করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এর মধ্যে গৃহকর, ট্রেড লাইসেন্স ফি, নবায়নসহ বিভিন্ন কাজের ফি সমুহ ব্যাংকের মাধ্যমে জমা দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এ নিয়ে গত মঙ্গলবার আর্থিক ও কারিগরি প্রস্তাব মূল্যায়ন কমিটির একটি বৈঠকও হয়েছে।

চসিকে বর্তমানে মোট হোল্ডিং সংখ্যা এক লাখ ৮৫ হাজার ২৪৮টি। এর মধ্যে সরকারি হোল্ডিং এক হাজার ৩৯৯টি, বেসরকারি হোল্ডিং সংখ্যা এক লাখ ৮৩ হাজার ৮৪৮টি। এসব হোল্ডিংস এর বিপরীতে চসিকের বাৎসরিক পাওনা দাবি ৩৩৫ কোটি ৪২ লাখ ৮২ হাজার এক টাকা। বর্তমানে সনাতন পদ্ধতিতে এসব ফি আদায় করা হচ্ছে। ডিজিটালাইজেশনে চসিকের এটি নতুন সংযোজন বলে জানা যায়।

চসিকের আইটি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ‘আরবান পাবলিক এন্ড এনভায়রনমেন্টাল হেলথ সেক্টর ডেভলপমেন্ট’ প্রকল্পের আওতায় চসিকের রাজস্ব ও হিসাব বিভাগের জন্য প্রণীত সফটওয়্যারের মাধ্যমে অনলাইনে হোল্ডিং ট্যাক্স (গৃহকর), ট্রেড লাইসেন্স ফিসহ বিবিধ ফি সমুহ ব্যাংকের মাধ্যমে গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত হয়। এ নিয়ে আগ্রহী ব্যাংকগুলোকে চসিকে আবেদন করতে গত ২১ জুন বিজ্ঞপ্তিও প্রকাশ করে। ইতোমধ্যে ১০টি ব্যাংক আগ্রহ প্রকাশ করে আবেদন করে বলে জানা যায়।

চসিকের আইটি অফিসার এবং আর্থিক ও কারিগরি প্রস্তাব মূল্যায়ন কমিটির সদস্য সচিব মোহাম্মদ ইকবাল হাসান বলেন, ‘ব্যাংকের মাধ্যমে ট্রেড লাইসেন্স গৃহকরসহ নানা ফি চসিকে জমা দেওয়ার একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে আগ্রহী বেশ কিছু ব্যাংকের সঙ্গে আমাদের বৈঠকও হয়। আগ্রহী ব্যাংকের নিজস্ব সফটওয়্যার এবং চসিককে স্থানীয় সরকার কর্তৃক প্রদত্ত সফটওয়্যারের সঙ্গে সমন্বয় করে প্রক্রিয়াটি চালু করা হবে। তাই দু’টি সফটওয়্যার পরীক্ষামূলক চালু করে ব্যাংক চূড়ান্ত করার প্রক্রিয়া চলমান। আশা করি খুব শীঘ্রই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হয়ে যাবে।’

চসিক সূত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের তত্ত্বাবধানে এক্সেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) কর্মসূচির আওতায় অনলাইন পদ্ধতিতে চসিকে ট্রেড লাইসেন্স ব্যবস্থাপনা, অনলাইন সনদপত্র ব্যবস্থাপনা এবং অনলাইন এসেট ব্যবস্থাপনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এখন ব্যাংকের মাধ্যমে গৃহকর এবং ট্রেড লাইসেন্স ও নবায়ন ফি প্রদানের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এটি বাস্তবায়ন হলে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের এটিম কার্ডের মাধ্যমে দেশে যে কোনো স্থান থেকেই ট্রেড লাইসেন্স ফি, নবায়ন ফি এবং গৃহকর জমা দেওয়া যাবে।

You might also like