আজ সোমবার রাত ২:৪১, ২৩শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং, ৮ই কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ১লা সফর, ১৪৩৯ হিজরী

হরতাল ডেকে লাপাত্তা জামায়াত

নিউজ ডেস্ক | বার্তা বাজার .কম
আপডেট : অক্টোবর ১২, ২০১৭ , ৩:৫০ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : প্রধান খবর,রাজনীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

দলের শীর্ষ নেতাদের গ্রেফতারের প্রতিবেদে হরতালের ডাক দিয়েছিল বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামী। তবে বৃহস্পতিবার সকালে থেকে রাজধানীসহ সারা দেশে হরতালের কোন দৃশ্য চোখে পড়েনি। বরং উল্টো রাজধানীসহ সারা দেশে স্বাভাবিক ছিল যান চলাচল। বিকাল তিনটায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত রাজধানীর কোথাও কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। এমনকি জামায়াত-শিবিরের হরতালের সমর্থনে কোথাও মিছিল বা পিকেটিং করতে দেখা যায়নি।

জানা গেছে, গত সোমাবর রাতে রাজধানীর উত্তরা এলাকা থেকে জামায়াতের আমির মকবুল আহমেদ, সেক্রেটারী ডা. শফিকুর রহমানসহ শীর্ষ আট নেতাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশের দাবি গোপন বৈঠক থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। পরদিন মঙ্গলবার তাদের বিরুদ্ধে রাজধানীর কদমতলী থানায় দুটি মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলা পরিপ্রেক্ষিতে ৫ দিন করে মোট ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত।

পরে ওই দিন সন্ধ্যায় বৃহস্পতিবার সারা দেশে সকাল সন্ধ্যা হরতালের আহ্বান করেছিল। কিন্তু আজ সকালে থেকে জামায়াত-শিবিরের নেতারা ঘর থেকে বের হয় নাই। প্রতিদিনের মতো আজও রাজধানীতে স্বাভাবিকভাবে গাড়ি চলাচল করেছেন। সঠিক সময়ে কদমলতী রেল স্টেশন থেকে ছেড়ে গেছে ট্রেন। সংম্লিষ্টরা এমন তথ্যই গোনিউজকে জানিয়েছেন।

এদিকে, বৃস্পতিবার সকাল থেকে রাজধানীর মালিবাগ, ফকিরাপুল, মতিঝিল, রামপুরা, বাড্ডা, গুলশান, মোহাম্মাদপুর, ধানমণ্ডি, পল্টন, শাহবাগ এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, ওইসব এলাকায় দোকানপাঠ খোলা রয়েছে। সরকারী, বেসরকারী স্কুল, কলেজসহ সকল ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খোলা রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষার্থীরাও উপস্থিত হয়েছেন।

এ সময় কয়েকজন শিক্ষার্থী ও অভিভাবক গোনিউজকে জানান, প্রতিদিনের মত তারা আজও স্কুলে এসেছেন। স্কুলে আসার পথে কোন সমস্যা হয়নি। উল্টো রাস্তায় যানজট ছিল বলে জানান একাধিক অভিভাবক।

এদিকে, ফামগের্ট এলাকায় একটি বেসরকারী স্কুলের শিক্ষক মুস্তাফিজুর রহমান গোনিউজকে জানান, তার বাসা রাজধানীর মহাখালী এলাকায়। সেখান থেকে তিনি বাসে করে ফার্মগেটে আসেন। প্রতিদিনের মতো আজও তিনি বাসে করে ফার্মগেটে এসেছেন। আসার পথে কোন সমস্যা হয়নি জানিয়ে তিনি বলেন, শুনেছিলাম হরতাল। কিন্তু রাজপথে তো হরতালের কোন প্রভব ছিল না।

এদিকে, হরতালকে কেন্দ্র করে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায়গুলোতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। মোতায়েন করা হয়েছে বাড়তি পুলিশ। এছাড়া পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব সদস্যরাও রাজধানীর বিভিন্ন রাস্তায় টহল দিতে দেখা গেছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর পুলিশের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের অতিরিক্ত উপ কমিশনার মো. ইউসূফ আলী জানান, রাজধানীতে হরতালের কোন প্রভাব পড়েনি। সকাল থেকে যানচলাচল স্বাভাবিক ছিল। এছাড়া রাজধানীতে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি বলে জানান তিনি।