আজ সোমবার সকাল ৬:৩৮, ২৩শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং, ৮ই কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২রা সফর, ১৪৩৯ হিজরী

ছাত্রীকে প্রকাশ্যে শ্লীলতাহানীর হুমকি রাবি ছাত্রলীগ নেতার

নিউজ ডেস্ক | বার্তা বাজার .কম
আপডেট : অক্টোবর ১২, ২০১৭ , ১০:৫৬ পূর্বাহ্ণ
ক্যাটাগরি : অপরাধ ও দুর্নীতি,রাজশাহী
পোস্টটি শেয়ার করুন

 

রাজশাহী প্রতিনিধি:

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ছাত্রলীগ নেতার প্রেমিকার সঙ্গে দ্বন্দ্বের জেরে মন্নুজান হলের আবাসিক এক ছাত্রীকে ক্যাম্পাসে প্রকাশ্যে ‘শ্লীলতাহানি’র হুমকি দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার দুপুরে দিকে এ ঘটনা ঘটে। তবে আতঙ্কিত হয়ে ওই ছাত্রী প্রথমে বিষয়টি গোপন করেন। পরে সন্ধ্যায় আবারো ওই ছাত্রলীগ নেতা কয়েকবার ফোন করে হুমকি দিলে বিষয়টি পরে জানাজানি হয়।

 

অভিযুক্ত ওই ছাত্রলীগ নেতার নাম ছানোয়ার হোসেন। তিনি রাবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি এবং ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। সারওয়ারের প্রেমিকা দর্শন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী এবং মন্নুজান হলের গণরুমে থাকেন।

 

অপরদিকে ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী রাবির সংগীত বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনিও মন্নুজান হলের আবাসিক শিক্ষার্থী।

 

এদিকে ছাত্রলীগ নেতার হুমকিতে ওই ছাত্রী ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন বলে হলের অন্য ছাত্রীরা জানিয়েছেন। তবে হল প্রাধ্যক্ষ ও আবাসিক শিক্ষকরা ওই ছাত্রীকে ‘চাপ দিয়ে’ বিষয়টি মীমাংসা করার চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। প্রাধ্যক্ষ ও আবাসিক শিক্ষিকাকে বারবার কল করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

 

হলের আবাসিক ছাত্রীরা জানায়, মন্নুজান হলের গণরুমের ছাত্রীদের গোসল করার জন্য নির্দিষ্ট জায়গা বরাদ্দ রয়েছে। কিন্তু ছাত্রলীগ নেতা সারওয়ারের প্রেমিকা গণরুমের ছাত্রী হওয়া সত্ত্বেও সেখানে গোসল না করে মঙ্গলবার দুপুুুরে সংগীত বিভাগের ওই ছাত্রীর কক্ষের পাশের গোসলখানায় গোসলে ঢোকেন। সে গোসলখানা থেকে বের হতে দেরি হওয়ায়, সংগীত বিভাগের ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী দরজায় নক করেন এবং দ্রুত গোসল শেষ করে বেরিয়ে যেতে বলেন। পরে গোধুলী গোসল সেরে বের হলে দু’জনের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। বিষয়টি ওই ছাত্রী তার প্রেমিক ছাত্রলীগ নেতাকে মোবাইলে অবগত করেন। পরে সংগীত বিভাগের ওই ছাত্রীকে মোবাইলে কল করে শ্লীলতাহানির হুমকি দেন ছাত্রলীগ নেতা সারওয়ার।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই হলের এক আবাসিক একাধিক শিক্ষার্থী জানায়, অভিযুক্ত ওই ছাত্রলীগ নেতার প্রেমিকা গোধুলী ছোটখাট বিষয় নিয়ে প্রায় আমাদের সঙ্গে ঝগড়া করে। কিছু বললে ছাত্রলীগ নেতা দিয়ে আমাদের শায়েস্তা করার হুমকি দেন।

 

ভুক্তভোগী ছাত্রী অভিযোগ করেন, গণরুমের ওই জুনিয়র হওয়া সত্ত্বেও খারাপ ব্যবহার করায় তার সঙ্গে কথাকাটাকাটি হয়। পরে দুপুরে অপরিচিত নম্বর থেকে কল দিয়ে ছাত্রলীগ নেতা নিজের পরিচয় দিয়ে অশ্লীল-অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে। একপর্যায়ে সারওয়ার বলে- ‘দেখবে কি করতে পারি আমি? তোমাকে সিরাজী ভবনের ছাদে নিয়ে গিয়ে প্রকাশ্যে শ্লীলতাহানি করব।’

 

তবে হুমকির বিষয়টি অস্বীকার করেছেন ওই ছাত্রলীগ নেতা। তিনি বলেন, ‘ওই মেয়েটি আমার বান্ধবীকে বিভিন্ন সময়ে বিরক্ত করত। এজন্য আমি তার মোবাইলে কল দিয়ে কথা বলেছি। আমার বান্ধবীর সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করতে নিষেধ করেছি। কোনো হুমকি দেয়নি।’

 

রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, যতদূর জেনেছি- ওই মেয়েটি অন্য ছাত্রীদের সঙ্গেও দুর্ব্যবহার করে। সারওয়ারের বান্ধবীর সঙ্গেও খারাপ ব্যবহার করেছিল। বিষয়টি হল প্রাধ্যক্ষ এবং আবাসিক শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে মীমাংসা করা হয়েছে।’

 

জানতে চাইলে প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক জিন্নাত ফেরদৌসী ও হলের আবাসিক শিক্ষিকা বিউটি পারভীনের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তারা কল রিসিভ করেননি।

 

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. লুৎফর রহমান বলেন, ‘ এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী মেয়েটি এখনও আমাদের কিছু জানায়নি। যেহেতু হলের বিষয়, প্রাধ্যক্ষ বিষয়টি দেখবেন। আর মেয়েটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে লিখিত অভিযোগ দিলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।