১৪, ডিসেম্বর, ২০১৮, শুক্রবার | | ৫ রবিউস সানি ১৪৪০

পূর্ব আক্রোশের জেরে নাসিমকে হত্যা!

আপডেট: নভেম্বর ১৪, ২০১৮

পূর্ব আক্রোশের জেরে নাসিমকে হত্যা!

পূর্ব আক্রোশের জের ধরে রাজধানীর বাড্ডায় মানারাত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাসিম আহমেদকে হত্যা করে ২১ বছর বয়সের যুবক আসিফ শিকদার।

নাসিম হত্যা মামলায় দেওয়া চার্জশিটে এমনটাই উল্লেখ করেছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বাড্ডা থানার এসআই এম এম কামরুল হাসান। গত ৩০ সেপ্টেম্বর তিনি আসিফকে একমাত্র আসামি করে চার্জশিট দাখিল করেন। রমজান ওরফে হক মিয়া এবং আব্দুর রশিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের অব্যাহতির আবেদন করেছেন তদন্ত কর্মকর্তা।

বুধবার মামলার তারিখ ধার্য ছিল। কিন্তু বাদী আলী আহমেদ সাইফ উদ্দীন নারাজি দাখিল করবেন জানিয়ে সময় আবেদন করেন তার আইনজীবী। ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসিম আগামী ১৭ ডিসেম্বর বাদীকে আদালতে হাজির হতে নোটিশ জারি করেছেন।

চার্জশিটে তদন্ত কর্মকর্তা উল্লেখ করেন, নাসিম এবং আসামিরা পূর্ব বাড্ডায় বসবাস করে আসছিল এবং তারা পূর্বপরিচিত। আসিফ গত বছরের ৫ নভেম্বর রাত ৮টার দিকে ডিআইটি রোডস্থ ৪ নং রোডের মাছের আড়তের পাশে ক্যারম বোর্ড খেলছিল। ক্যারম বোর্ড খেলাকালে নাসিম এসে অকারণে আসিফের সাথে চিল্লাচিল্লি করে ও তর্কাতর্কি করে। তাদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি ও মনোমালিন্য ঘটে। যার ফলে তাদের মধ্যে শত্রুতা সৃষ্টি হয়। পরদিন নাসিম বাসা থেকে বের হলে পূর্ব আক্রোশের জের ধরে আসিফ তার হাতে থাকা চাকু দিয়ে নাসিমকে আঘাত করে। এর ফলে নাসিমের শরীরের বিভিন্ন স্থান গুরুতর জখম হয়। তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসাপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নাসিম মারা যায়।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৬ নভেম্বর সকাল ৯টার দিকে রাজধানীর বাড্ডা থানাধীন পোস্ট অফিসের গলির বাসার সামনে নাসিমের গলায় ও কোমরে তিনটি স্থানে ছুরিকাঘাত করা হয়। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নাসিম মারা যায়। ঘটনার দিন রাতেই তিনজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৩/৪ জনের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন নাসিমের বাবা আলী আহমেদ সাইফ উদ্দীন।