১৯, নভেম্বর, ২০১৮, সোমবার | | ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

যে ভাবে বুঝবেন আপনি যথেষ্ট ভিটামিন ডি পাচ্ছেন না

আপডেট: নভেম্বর ১, ২০১৮

যে ভাবে বুঝবেন আপনি যথেষ্ট ভিটামিন ডি পাচ্ছেন না

বেশিরভাগ মানুষই ভিটামিন এ, বি বা সিয়ের অভাবের কথা চিন্তা করেন। এসব ভিটামিন আমাদের বেশি পরিচিত, তাই বলে ভিটামিন ডি একেবারে ফেলনা নয়। আমাদের দাঁত, হাড় ও সার্বিক স্বাস্থ্য ভালো রাখে এই ভিটামিনটি। ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফেটের মতো খনিজগুলো শরীরে শোষণ করতে ভিটামিন ডি অপরিহার্য। একে সানশাইন ভিটামিন বলা হয়, কারণ সূর্যের আলোর উপস্থিতিতে আমাদের ত্বকে তা তৈরি হয়। ভিটামিন ডি একটি ভিটামিন নয়, এর মাঝে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে ভিটামিন ডি-১, ডি-২ ও ডি-৩। স্বাস্থ্য ভালো রাখা ছাড়াও ভিটামিন ডি ওজন কমাতে সাহায্য করে, ডিপ্রেশন কমায় ও রোগ থেকে শরীরকে দূরে রাখে।

ভিটামিন ডিয়ের অভাবে অনেকে ভুগলেও তাকে পাত্তা দেন না। বিশেষ করে শীতকালে অনেকেই নিজের অজান্তে এর অভাবে ভুগে থাকেন। জেনে নিন ভিটামিন ডি অভাবের কারণগুলো-

অতিরিক্ত সানস্ক্রিনের ব্যবহার ও ত্বকে সূর্যের আলো পড়তে না দেওয়া
দূষিত এলাকায় বসবাস
ঘরের ভেতরেই বেশি সময় কাটানো
আলোবাতাসহীন বাড়িতে বসবাস
ভিটামিন ডি-যুক্ত খাবার না খাওয়া
ভিটামিন ডি অভাবের লক্ষণগুলো

১) ক্লান্তি, শরীর ম্যাজম্যাজ করা, শরীর ব্যথা করা ও শরীর খারাপ লাগা।

২) হাড় ও পেশীতে ব্যথা বা দুর্বলতা, যাতে সিঁড়ি ভাঙ্গা বা মেঝেতে বসা থেকে ওঠার মতো কাজ করতেও কষ্ট হয়।

৩) ঊরু, কোমর ও নিতম্বের এলাকায় হাড়ে ফ্র্যাকচার হওয়া।

৪) অতিরিক্ত চুল পড়া।

৫) ক্ষতস্থান শুকাতে অনেক বেশি সময় লাগা।

৬) বিষণ্ণতার লক্ষণ।

৭) পেটের সমস্যা দেখা দেওয়া।

ভিটামিন ডি-যুক্ত খাবার

সূর্যের আলো ছাড়াও কিছু খাবার থেকে ভিটামিন ডি পাওয়া যায়। এ খাবারগুলোর মাঝে রয়েছে, সামুদ্রিক মাছ, ডিমের কুসুম, সয়া মিল্ক, দুধ ও দুগ্ধজাত খাবার, মাশরুম, অরেঞ্জ জুস ও কোকো।