আজ শুক্রবার রাত ২:১৭, ২৪শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং, ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল ৭ম শ্রেণির ছাত্রী

নিউজ ডেস্ক | বার্তা বাজার .কম
আপডেট : সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৭ , ৯:৫০ পূর্বাহ্ণ
ক্যাটাগরি : অপরাধ ও দুর্নীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

কুড়িগ্রাম: উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল ৭ম শ্রেণির শিক্ষার্থী জান্নাতি খাতুন। সে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়নের কুটি চন্দ্রখানা গ্রামের আজিজুর রহমানের মেয়ে ও একতা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী।

স্থানীয় সূত্র জানায়, জান্নাতির বিয়ে ঠিক হয় শিমুলবাড়ি ইউনিয়নের শিমুলবাড়ি গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে দুই সন্তানের জনক আব্দুল মালেকের (৩৭) সাথে। এ বিয়ে ঠিক করেন জান্নাতির বাবা ও ফুফু। তবে মেয়ের এমন বিয়েতে রাজি ছিলেন না তার মা। মেয়ের পাশে শক্ত অবস্থান নিয়ে দাঁড়ান তিনি।

গত শুক্রবার গভীর রাতে বিয়ের আয়োজন করে জান্নাতির পরিবার। এদিকে জান্নাতি এ বিয়েতে রাজি না থাকায় রাত গড়িয়ে সকাল হয়। তবে শনিবার সকালে বাবা আজিজুর রহমান আত্মহত্যার ভয় দেখিয়ে মেয়েকে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে বাধ্য করেন।

কিন্তু ইউনিয়নটির সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য মোমেনা বেগম ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ভারত চন্দ্র রায় খবর পেয়ে বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হয়ে বাধা দেন। তাদের বাধা উপেক্ষা করলে বিষয়টি তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবেন্দ্র নাথ উরাঁওকে জানান। দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিয়ে বন্ধ করে বর পক্ষকে বিদায় করে দেন।