২১, নভেম্বর, ২০১৮, বুধবার | | ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

যমজ নির্মাতার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ

আপডেট: আগস্ট ২০, ২০১৮

যমজ নির্মাতার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ

প্রতিবারই ঈদ আনন্দে বাড়তি মাত্রা যোগ করে জনপ্রিয় অভিনেতা মোশাররফ করিমের নাটক। দুই ঈদের অধিকাংশ নাটকেই তার উপস্থিতি। এই উৎসবে শত শত নাটকের ভিড়ে প্রিয় অভিনেতার নাটককেই খুঁজে নেন সর্বস্তরের মানুষ।

বিশেষ করে নাটকের সিক্যুয়েলগুলো দিয়েই ঈদে পর্দা কাঁপান এ তারকা। এর মধ্যে একটি ‘জমজ’। এই সিরিজটির এতটাই জনপ্রিয়তা যে, নির্মাতা এরই মধ্যে প্রায় ১০টি সিক্যুয়েল নির্মাণ করে ফেলেছেন।

তবে বাঁধ সেজেছে অন্য খানে। সিরিজটির মূল ভাবনা নির্মাতা ও অভিনেতা অনিমেষ আইচের। কয়েকদিন আগে তিনি জানতে পারেন, নাটকটির নির্মাতা আজাদ কালাম গল্পের মূল ভাবনার জায়গায় তার নাম বাদ দিয়ে নিজের নাম জুড়ে দিয়েছেন। বিষয়টি উল্লেখ করে প্রতারণার অভিযোগ এনেছেন অনিমেষ। ‘যমজ’ সিরিজের নবম পর্বের চিত্রনাট্য লিখেন অনিমেষ। পরে ‘কোনো কারণে’ নিজেকে নাটকটি থেকে সরিয়ে নেন তিনি।

এ বিষয়ে অনিমেষ জানান, ‘যমজ নাটক নিয়ে এই কদর্যতা আমার পছন্দ হয়নি। তাই বিষয়টি নিয়ে কপিরাইট ইস্যুতে আমি আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করব।’ অনিমেষ জানান, তিনি প্রাথমিকভাবে বিষয়টি টেলিভিশন পরিচালকদের সংগঠন ডিরেক্টর’স গিল্ডকে জানিয়েছেন।

নাটকের মূল ভাবনা প্রসঙ্গে অনিমেষের ভাষ্য, ‘তারা অত্যন্ত গোপনীয়তার সঙ্গে শুটিং করছে। কাউকে কিছু জানাচ্ছেন না। কেউ যদি চুরি করে ধরা পড়ে, তখন সে নানান দাবি করবে, এটাই স্বাভাবিক। গোপনে চৌর্যবৃত্তি ঠিক না।’

অনিমেষ আরও বলেন, ‘নাটকটির মূল ভাবনা আমার। এই নাটকের নয়টি সিরিজ লিখেছি আমি। হঠাৎ করেই মূল ভাবনা আজাদ কালামের হয়ে গেল! আমি অনিমেষ আইচ হওয়ার পেছনে যমজ একমাত্র উপাদান নয়। আমার মতো মানুষের সঙ্গে যদি এ ধরনের প্রতারণা করা হয়, তাহলে নতুন যারা কাজ করছে, তাদের ঠিক কী ধরনের পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে!

আমি তার জন্য কী করছি আর করেছি, সেটা সে বলতে পারবে। তাকে তো আমি পছন্দ করতাম। কিন্তু এ ঘটনার ফলে সে তার জায়গাটা হারাল। টাকা দিয়ে তো আর সব সম্পর্ক হয় না।’

এ বিষয়ে টিভি নাটক নির্মাতাদের সংগঠন ডিরেক্টর’স গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক এস এ হক অলিক জানান, ‘আমি বিষয়টা খুব একটা ক্লিয়ার না। অনিমেষ দা কাল ফোন করেছিলেন। এরপর ঘটনাটা বলল। তিনি ঘটনার লিখিত দেবেন। তখন বিস্তারিত বলতে পারব। বিষয়টা তো একজন চিত্রনাট্যকারের দিক থেকে বেশ ইমোশনের। এটা দুঃখজনক। আমি এ মুহূর্তে এর বেশি কিছু বলতে পারব না। কারণ অনিমেষের সঙ্গে বিস্তারিত কথা না হলে বিষয়টা বোঝা মুশকিল।’