১৬, অক্টোবর, ২০১৮, মঙ্গলবার | | ৫ সফর ১৪৪০

বৈধ যৌনতার বিস্ময়কর উপকারিতা!

আপডেট: আগস্ট ১২, ২০১৮

বৈধ যৌনতার বিস্ময়কর উপকারিতা!

যৌনতা একটি অপরিহার্য মানবিক প্রয়োজন। বিকৃত ও অনিরাপদ যৌনতা আপনার জন্য যেমন ঝুঁকিপূর্ণ; ঠিক একইভাবে সুস্থ ও বৈধ যৌনতা আপনার জন্য ভীষণ ইতিবাচক। এর স্বাস্থ্যগত ও মানসিক উৎকর্ষ আপনাকে দিতে পারে একটি উপভোগ্য ও আত্নবিশ্বাসী জীবন। তবে এজন্য আপনার প্রয়োজন হবে বিয়ের মত একটি সমাজ স্বীকৃত পন্থা; যার ভেতর দিয়ে আপনি এই কল্যাণগুলো অর্জন করতে পারবেন।

চলুন এবার জানা যাক বৈধ যৌনতার উপকারি দিকগুলো।

১. ভালো থাকবে আপনার হৃদযন্ত্র: অ্যামেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশনের বৈজ্ঞানিক গবেষণা মতে, সপ্তাহে অন্তত দুইবার বৈধ যৌন মিলনের ফলে হৃদযন্ত্রের কর্মপ্রক্রিয়া থাকবে সহজাত ও সুন্দর। পাশাপাশি স্ট্রোক ও হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি থেকেও নিরাপদ থাকবে আপনার হৃদযন্ত্র। যে কয়টি ভালো এক্সার সাইজ মানুষের হৃদযন্ত্রকে ভালো রাখতে পারে যৌন মিলনকে তার অন্যতম প্রধান বলে উল্লেখ করেছে সংস্থাটি।

২. কমে যাবে মানসিক চাপ: প্রতিদিন জীবনের স্বাভাবিক তৎপরতায় আমাদের মনে জমা হয় বিভিন্ন ধরনের স্ট্রেস ও পেইন। এতে করে বিষন্নতা, একাকিত্ব, মানসিক অস্থিতিশীলতাসহ অনেক প্রকার নেতিবাচক ঘটনার উৎপত্তি হয়, যা সুস্থ জীবন-যাপনের জন্য ক্ষতিকারক। বৈধ যৌনতার সংস্পর্শে আপনার এই সব প্রতিকূল অনুভূতিগুলো দূর হয়ে যাবে। মানসিক চাপগুলো সরে গিয়ে আপনি অনুভব করবেন প্রফুল্লতা ও উচ্ছাস।

৩. দৃঢ় হবে সম্পর্কের ভিত্তি: যৌনতার সুখ আপনার সঙ্গীকে আপনার সাথে শক্তিশালী বন্ধণে আবদ্ধ করবে। পারস্পরিক ভুল বোঝাবুঝি ও দূরত্ব কমে গিয়ে বিবাহিত জীবনের স্থিরতা অনুভব করবেন। সুখময় এই দাম্পত্য আপনার চারপাশে বিনির্মাণ করবে এক অটুট পারিবারিক সম্পর্ক।

৪. নিরবিচ্ছিন্ন হবে নিদ্রা: অনিদ্রা জনিত সমস্যায় ভোগে এমন মানুষের কমতি নেই পৃথিবীতে। অথচ একটি ভালো ঘুম আপনাকে দিতে পারে বিপুল কর্মস্পৃহা ও সুস্থ শরীর। আর এজন্য যৌন মিলনের চেয়ে ভালো কিছু পাওয়া কঠিন। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল স্লিপ ফাউন্ডেশান জানিয়েছে, সুস্থ যৌনতার দরুন হরমোন প্রল্যাকটিন অবমুক্ত হয়; ফলে মানসিক অবসাদ দূর হয়ে মানুষ ঘুমোতে পারে নিরবিচ্ছিন্নভাবে।

৫. থাকবে না প্রোস্টেট ক্যানসারের ঝুঁকি: ইউরোপিয়ান ইউরোলজি জার্নালের গবেষণা মতে, ‘প্রোস্টেট ক্যানসারের মত ভয়াবহ অসুখ থেকে বাঁচতে হলে বিকল্প নেই সুস্থ যৌনতার’। যারা নিয়ম মাফিক মিলনে অভ্যস্ত তাদের ক্ষেত্রে এই রোগ না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

৬. নিয়ন্ত্রণে থাকবে উচ্চ রক্তচাপ: যৌন মিলনে সাধারণত রক্ত সঞ্চালন প্রক্রিয়া দ্রুত হয়। এর ফলে মেন্টাল স্ট্রেস কমে গিয়ে বজায় থাকে হৃদযন্ত্রের সহজাত কর্মপ্রক্রিয়া। আর হৃদপিন্ড স্বাভাবিক থাকলে উচ্চ রক্তচাপও কমে গিয়ে স্বাভাবিক অবস্থা বিরাজমান থাকে। ফলে যারা হাই ব্লাড প্রেসারে আক্রান্ত তাদের জন্য বৈধ যৌন মিলন হতে পারে একটি নিরাময় প্রক্রিয়া। সূত্র: এভরিডে হেল্থ ডটকম