১৮, ডিসেম্বর, ২০১৮, মঙ্গলবার | | ৯ রবিউস সানি ১৪৪০

প্রেমিকাকে পাঁচ বন্ধু মিলে ধর্ষণ!

আপডেট: আগস্ট ১২, ২০১৮

প্রেমিকাকে পাঁচ বন্ধু মিলে ধর্ষণ!

এক নাবালিকার সাথে দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল রাজু মান্ডি নামের এক যুবকের। এরপর বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাকে একদিন বাড়ি থেকে নিয়ে যায় ওই যুবক।

স্থানীয়রা জানান, চলতি মাসের ৬ তারিখ থেকে মেয়েকে নিখোঁজ দেখে আত্মীয়দের বাড়িতে খোঁজ করছিলেন ওই নাবালিকার মা। কোথাও কেউ তাঁর সন্ধান পাচ্ছিলেন না। পরে ৮ অাগস্ট ভারতের খড়গপুরের ২ নম্বর ব্লকের কয়তা গ্রামের ওই আদিবাসী কিশোরীর মা থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেছিলেন। পুলিশও খোঁজ শুরু করে।

এরই মাঝে ৯ অাগস্ট গ্রাম থেকে কিছুটা দূরে রাস্তার পাশে ওই নাবালিকাকে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন গ্রামবাসীরা। গ্রামবাসীদের কাছে খবর পেয়ে পুলিশ ওই নাবালিকাকে উদ্ধার করে খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে পুলিশের কাছে ওই নাবালিকা সমস্ত ঘটনা খুলে বলে।

পুলিশ বলছে, পুরনো প্রেমের সম্পর্ক থেকেই রাজু মান্ডি ওই কিশোরীকে বিয়ে করার প্রস্তাব দিয়ে ডেকে নিয়ে যায়। ৬ অাগস্ট রাজুর সঙ্গে বেরিয়ে পড়ে ওই কিশোরী। রাজু সন্ধ্যার সময়‌ গ্রামের পাশে একটি পাম্প হাউসে তাকে নিয়ে ওঠে। সেখানে রাতে তাকে ধর্ষণ করার অভিযোগ করেছে কিশোরী। পরে আরো পাঁচ বন্ধু মিলে তাকে ধর্ষণ করে বলেও অভিযোগ করেছে কিশোরী।

সেদিন থেকে তিন দিন ধরে ওই পাম্প হাউসে তাকে আটকে রেখে ধর্ষণ চালায় ছয়জন আদিবাসী যুবক। পরে ওই নাবালিকার পরিস্থিতি খারাপ মনে হওয়ায় রাস্তার পাশে ফেলে পালায় তারা।

কিশোরীর মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে শনিবার রাজু মান্ডিসহ চার যুবককে আটক করেছে পুলিশ। বাকি দু’জন অভিযুক্ত পলাতক রয়েছে।