১৫, আগস্ট, ২০১৮, বুধবার | | ৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৩৯

তরিকুলকে তুলে নেয়া হয়েছিল, অভিযোগ পরিবারের

আপডেট: আগস্ট ৮, ২০১৮

তরিকুলকে তুলে নেয়া হয়েছিল, অভিযোগ পরিবারের

নড়াইলে যশোর-নড়াইল সড়কের পাশ থেকে তরিকুল ইসলাম (২৮) নামে এক যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতের পরিবারের দাবি তাকে গত ৩ আগস্ট সাদা পোশাকধারী কিছু লোক তুলে নিয়ে যায়।

নিহত তরিকুল যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার জামদিয়া গ্রামের মিজানুর বিশ্বাসের ছেলে। তিনি যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার যুবলীগ কর্মী ছিলেন। এছাড়া তিনি জামদিয়া বাজারে সার ও কীটনাশকের ব্যবসা করতেন।

নিহতের দুলাভাই মামুন শেখ জানান, গত ৫ দিন আগে তার শ্যালককে তুলে নেয়া হয়েছিল। সে খুব ভালো ছেলে ছিল। দলীয় কোন্দল কিংবা বন্দুকযুদ্ধে তার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বাঘারপাড়ার করিমপুর গ্রামের মো. ইমান আলী জানান, গত শুক্রবার (৩ আগস্ট) সন্ধ্যায় জামদিয়া বাজারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে একদল সাদা পোশাকধারী লোক তরিকুলকে ধরে নিয়ে যায়। পরে যশোরে ডিবি পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে আটকের বিষয়টি অস্বীকার করে তারা। এ বিষয়ে বাঘারপাড়া থানায় জিডি করতে গেলেও পুলিশ জিডি গ্রহণ করেনি। ঘটনার ৫ দিন পর তার গুলিবিদ্ধ মরদেহ পাওয়া গেল।

যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম-আহায়ক কামরুজ্জামান লিটন জানান, তরিকুল বাঘারপাড়া উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সক্রিয় সদস্য। তার বিরুদ্ধে থানায় কোনো মামলা নেই।

এদিকে সদর থানার এসআই মাসুদ রানা জানিয়েছেন, বুধবার সকাল ৮টার দিকে নড়াইল-যশোর সড়কের শহর সংলগ্ন সীতারামপুর ব্রিজের পশ্চিম পাশের এলাকায় মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে থানা পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বাঘারপাড়া থানা পুলিশের ওসি মো. মঞ্জুরুল আলম জানান, তরিকুলের নামে বাঘারপাড়া থানায় কোনো মামলা নেই। অন্য কোনো থানায় মামলা আছে কি-না তার জানা নেই