২৩, অক্টোবর, ২০১৮, মঙ্গলবার | | ১২ সফর ১৪৪০

গুহায় আটকে রেখে কিশোরীকে ১৫ বছর ধরে ধর্ষণ!

আপডেট: আগস্ট ৮, ২০১৮

গুহায় আটকে রেখে কিশোরীকে ১৫ বছর ধরে ধর্ষণ!

১৩ বছর বয়সে এক কিশোরীকে ২০০৩ সালে চিকিৎসার জন্য জ্যাগো (৮৩) নামের এক ব্যক্তির কাছে নিয়ে গিয়েছিল বাবা-মা। বিকল্প ওষুধ ও জাদুকরী পদ্ধতিতে ব্যথা কমিয়ে রোগী সুস্থ করার বিষয়ে পরিচিতি আছে জ্যাগোর। সে রাতে সেখানেই ছিল কিশোরী। এরপর থেকেই কিশোরী গায়েব।

পরে বাবা-মাকে জানানো হয়, কিশোরী জাকার্তা চলে গেছে কাজের খোঁজে। কয়েক বছর পর খোঁজাখুঁজির পর বাবা-মা মেয়েকে পাওয়ার আশা বাদ দেন।

এর ঠিক ১৫ বছর পর পাওয়া গেল সেই কিশোরীকে। তার বয়স এখন ২৮। জানা গেছে ছোক একটি গুহায় তাকে দশকেরও বেশি সময় জুড়ে আটক রেখে ধর্ষণ করে গেছেন সেই ব্যক্তি। এ ঘটনায় তাকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

ঘটনার শিকার কিশোরীর নাম-পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি। ‘এইচ’ দিয়ে বিভিন্ন প্রতিবেদনে তাকে সম্বোধন করা হয়েছে। রবিবার ইন্দোনেশিয়ার সেন্ট্রাল সুলাবেসি প্রদেশের বাজুগাও গ্রামে একটি বড় পাথরের কাছে অবস্থিত গুহা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

জ্যাগোকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদের সূত্র ধরেই ‘এইচ’ নামের ওই নারীকে খুঁজে পাওয়া যায় বলে জানিয়েছে স্থানীয় পুলিশ। সূত্র: সিএনএন