২১, আগস্ট, ২০১৮, মঙ্গলবার | | ৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৩৯

সতর্ক হোন ফেসবুক ব্যবহারে

আপডেট: আগস্ট ৭, ২০১৮

সতর্ক হোন ফেসবুক ব্যবহারে

ইন্টারনেটভিত্তিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো, যেমন ফেসবুক-টুইটার-ইউটিউব এখনকার মানুষের জীবনের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িয়ে পড়েছে। এর মধ্যে ফেসবুক হচ্ছে সব থেকে জনপ্রিয় মাধ্যম। বিশ্বের নানা প্রান্তের কম বেশি সাধারণ মানুষ ফেসবুকে সক্রিয় থাকেন। আর এসব ব্যাবহারকারীদের অনেকেই ফেসবুকে সব কিছু শেয়ার করে দেয় অবলীলায়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারীদের অনেকেই নিজেদের দুঃখ-কষ্ট, সুখ-আনন্দ পোস্ট বা স্ট্যাটাস দেয়া ছাড়াও সামাজিক-রাজনৈতিক ও ধর্মীয়সহ আরও অনেক বিষয় যাচাই বাছাই ছাড়াই শেয়ার করে দেন। কিন্তু অনেক বিষয় পোস্ট-স্ট্যাটাস বা শেয়ার দেয়ার আগে অবশ্যই সতর্ক হওয়া বাঞ্ছনীয়। কারণ সামান্য অসতর্কে করা একটা পোস্ট অন্য কারো ক্ষতি বা নিজেরই ক্ষতি ডেকে আনতে পারে।

সত্যতা যাচাই করুন

অনেকেই যে কোনও ঘটনার কথা অন্য কারও থেকে শুনে কিংবা সামাজিক মাধ্যমের অন্য কোনও ব্যবহারকারীর মাধ্যমে জেনে পোস্ট বা শেয়ার করে দেন। তবে এমনটি করার আগে আপনাকে ভাবতে হবে- সেটি ঘটনা না রটনা। কিন্তু যাচাই বাছাই না করে এমনটি করলে ফলাফল ইতিবাচক নাও হতে পারে।

অনেক সময় আবেগের বশবর্তী হয়ে অনেকেই অনেক কিছু শেয়ার করে দিয়ে পরে দেখতে পান- তিনি যা শেয়ার বা পোস্ট করেছেন সে ঘটনার কোনও সত্যতাই নেই। আর এর দায়ভার এসে পড়ে পোস্টদাতার ওপরে।

তাই আবেগে নয়, কোনও কিছু পোস্ট করার আগে যুক্তিবুদ্ধির ব্যবহার করে সত্যতা যাচাই করে নিশ্চিত হয়ে নিন। আর এটা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারী হিসেবে দায়িত্বের মধ্যেই পড়ে। কারণ একজন ব্যবহারকারীর ভুল নিজের এবং অন্যদেরও বিপদাপন্ন করতে পারে।

বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হতে পারে

দৈনন্দিন জীবনের ভালো-মন্দ বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করা যেতেই পারে। কিন্তু ফেসবুকে না-জেনে না-বুঝে এমন কিছু পোস্ট বা শেয়ার করা উচিৎ নয়, যা পরবর্তীতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে পারে। তাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোনও কিছু শেয়ার বা পোস্ট দেয়ার আগে একবার হলেও ভাবুন- এ কারণে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে কিনা।

পাশাপাশি অন্য কোনও ফেসবুক ব্যবহারকারীর দ্বারা এমন কিছু হতে দেখলে সঙ্গে সঙ্গে তাকেও সতর্ক করুন।

অশালীন ও কুরুচিকর মন্তব্য

একজন ব্যক্তি মানুষের কাছে অপর একজন ব্যক্তি মানুষের প্রতি ভালো লাগা যেমন কাজ করে, তেমনই মন্দ লাগা বা পছন্দ নাও হতে পারে। তাই বলে কাউকে অপছন্দ করলেই তাকে নিয়ে যা ইচ্ছে তা বলা যাবে না। এমনটা উচিতও নয়। কারণ কাউকে অপছন্দ করলেও তাকে অন্যের কাছে হেয়প্রতিপন্ন হয় এমন কিছু করার অধিকার আপনার নেই।

তাই এমন কাউকে নিয়ে ফেসবুকে অশালীন-অমার্জিত ভাষায় আক্রমণাত্মক বাজে পোস্ট দেয়া থেকে বিরত থাকুন। এতে তার সম্মানহানির চেয়েও আপনার রুচির বিকৃতরূপও প্রকাশ পেতে পারে। তাছাড়া এই ধরণের যুক্তিবর্জিত কাজ পরবর্তীতে আপনার নিজের জন্যও বিপদের কারণ হতে পারে।

লেখক: সাংবাদিক