আজ শুক্রবার রাত ৪:১০, ২৪শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং, ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

বিপিএলে কপাল পুড়ছে ১৩ দেশি ক্রিকেটারের

নিউজ ডেস্ক | বার্তা বাজার .কম
আপডেট : আগস্ট ১৫, ২০১৭ , ৬:২০ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : খেলাধুলা
পোস্টটি শেয়ার করুন

২ নভেম্বর শুরু হবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ। দিন হিসেব করলে বিপিএল শুরু হতে এখনো ৮৪ দিন বাকি। তাই দল শেষ মুর্হুতের কাজ সমাধাণে ব্যস্ত বিপিএল গভর্নিং বোর্ড।

বিপিএলের এবারের আসরে মোট আটটি দল খেলার কথা থাকলেও শেষ মুর্হুতে বাদ পড়েছে বরিশাল বুলস। আর তাতে বিপদে পড়বে দেশি ক্রিকেটাররাও।

সেটি কিভাবে? কারণ এবারের বিপিএলের নতুন নিয়মে প্রতি টিমের একাদশে সর্বোচ্চ পাঁচ বিদেশি ক্রিকেটার খেলানোর কথা রয়েছে। যদিও প্রথম দুই আসরে পাঁচজন বিদেশি ক্রিকেটার খেলেছিল। এবার অর্থাৎ পঞ্চম আসরে আগের নিয়মেই ফিরেছে বিপিএল বোর্ড। আয়োজকদের ব্যাখ্যা, ফ্র্যাঞ্চাইজিদের চাওয়াতেই পাঁচজন বিদেশি ক্রিকেটার খেলানোর অনুমতি দিয়েছেন তারা।

একাদশে বিদেশি ক্রিকেটারের সংখ্যা বাড়ায় এবং দল কমে যাওয়ায় দেশি ক্রিকেটারদের দল পাওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছে শঙ্কা। দল কমলেও যে বিদেশি ক্রিকেটারের সংখ্যা কমানো হবে না বলে নিশ্চিত করেছেন গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্যসচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক। ফলে দেশি ক্রিকেটাররা কম সুযোগ পেতে যাচ্ছেন, তা বলাই যায়।

এক দলে দেশি ক্রিকেটার থাকবেন সর্বোচ্চ ১৩ বা ১৪ জন। সাত দলে এ সংখ্যা ৯১ থেকে ৯৮ জন। দল কমায় কমপক্ষে ১৩ ক্রিকেটারের কপাল পুড়ছে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। জাতীয় দল, এইচপি দলের ক্রিকেটারদের বাইরে ঘরোয়া ক্রিকেটের সেরা পারফরমাররাই বিপিএলে খেলবেন। আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর হবে প্লেয়ার বাই চয়েজ। সেখানেই ফ্র্যাঞ্চাইজিরা ক্রিকেটারদের দলে টানবেন।

যদিও বিদেশি ক্রিকেটারের সংখ্যা না কমানোর সিদ্ধান্তে অনড় আয়োজকরা। ইসমাইল হায়দার মল্লিক বললেন, ‘ফ্র্যাঞ্চাইজিদের চাওয়া মতো আমরা সিদ্ধান্ত দিয়েছিলাম পাঁচ বিদেশি ক্রিকেটার খেলানো হবে। এখন দল কমেছে, কিন্তু ফ্র্যাঞ্চাইজিদের পক্ষ থেকে আপত্তি আসবে। ফলে পূর্বের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে নতুন করে বিদেশি ক্রিকেটার কমানো আমাদের পক্ষে কঠিন কাজ।’