ধামইরহাটে পুরোদমে বসেছে গরু ছাগলের হাট

নওগাঁর ধামইরহাটে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে আজ রবিবার পুরোদমে বসেছে গরু ছাগলের হাট। করোনাকালীন সময়ে হাট-বাজারে উপস্থিত ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের মাঝে সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী নিরাপদ দূরত্ব বা স্বাস্থ্যবিধির কোন নমুনায় চোখে পড়েনি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বরাবরের মতই উপজেলার প্রাণকেন্দ্রে সকাল থেকে বসানো হয়েছে (ধামইরহাট) হাট-বাজার।

এসময় নিত্যপ্রয়োজনীয় তরিতরকারি (কাঁচা শাকসবজি) পান, মশলা, পেঁয়াজ, রসুন, মাছ-মাংস, কাপড়ের দোকান থেকে শুরু করে পুরোদমে বসানো হয়েছে গরু ছাগলের হাট-বাজার। এসময় হাটে আগত অধিকাংশ ক্রেতা বিক্রেতাদের মুখে কোন মাক্স পড়ে থাকতে দেখা যায়নি।

অন্যদিকে, ব্যবসায়ীরা নিরাপদ দূরত্ব বজায় না রেখে একই জায়গায় বরাবরের মতোই অস্থায়ীভাবে একাধিক ঘর বানিয়ে ব্যবসা করতে দেখা গেছে। তবে হাটে অন্যান্যবারের চাইতে এবার ক্রেতাদের সমাগম অনেকটা কম চোখে পড়েছে।

এমন অবস্থায় করোনা নিয়ন্ত্রণ তো দূরের কথা সংক্রমণ বৃদ্ধি ঠেকানো অনেকটাই অসম্ভব হয়ে পড়বে এমনটি মনে করছেন সুধীমহল। এ বিষয়ে তারা প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

এ বিষয়ে হাট ইজারাদার আশরাফুল ইসলাম বলেন, হাটে গরু ছাগল বা কাপড়ের দোকান বসানোর কোনো অনুমতি দেয়া হয়নি। তার পরেও অল্প পরিসরে গরু-ছাগল উঠেছে।

তিনি আরো বলেন, অনেক টাকা দিয়ে হাট-বাজার টি (ধামইরহাট) আমাদের কিনে নিতে হয়েছে। করোনাকালীন সময়ে এই হাট-বাজার থেকে অর্থনৈতিকভাবে অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গনপতি রায় বলেন, করোনাকালীন সময়ে হাটে গরু ছাগল উঠানোর কথা নয়। আমি আমাদের লোকজন পাঠিয়েছি। পুলিশকেও বলা হয়েছে তারা দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

রেজুয়ান আলম/বার্তা বাজার/এসবি

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর