আখাউড়ায় ইউপি সদস্যের বাড়িতে হামলা ভাংচুর: আহত ৭

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় পূর্ব বিরোধের জেরে আওয়ামী লীগ নেতার বাড়িতে হামলা ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার ( ২৫ জুলাই) সন্ধ্যায় উপজেলার মোগড়া ইউনিয়নের নয়াদিল গ্রামের সহিদুল ইসলামের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। তিনি মোগড়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। হামলায় নারীসহ ৭ জন আহত হয়েছে।

আহতরা হলো হিরন মিয়া (৩৫), সবুজ মিয়া (২৮), সুলমান (৩০), শানু মিয়া (৫০), সরুফা বেগম (৪৫) সাফিয়া বেগম (৬৫) ও আল আমিন (৩৫)। আহতদের মধ্যে দুই নারী ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। অন্যরা স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন। এ ঘটনায় মোঃ সহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে শনিবার ( ২৫ জুলাই) রাতেই আখাউড়া থানায় ১৭ জনকে অভিযুক্ত করে একটি অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ স্বপন মিয়াকে আটক করেছে।

লিখিত অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সামাজিক বিভিন্ন বিষয় নিয়া সহিদুল ইসলামের সঙ্গে দীর্ঘ দিন ধরে একই গ্রামের স্বপন মিয়া, বাবুল মিয়া, অহাব মিয়া, মতিন মিয়াসহ বিবাদীদের বিরোধ চলে আসছে। পূর্ব বিরোধের জেরে শনিবার ( ২৫ জুলাই) সন্ধ্যায় অহাব মিয়া ও মতিন মিয়ার নেতৃত্বে তাদের লোকজন দেশীয় অস্ত্রাদি নিয়া সহিদুল ইসলামের বাড়িতে অতর্কিত হামলা করে নারী-পুরুষকে বেদম মারধর করে।

হামলায় দুই নারীসহ ৭জন আহত হয়। হামলাকারীরা ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে। সহিদুল ইসলামের ছেলে হিরন মিয়ার দোকানে ভাংচুর ও লুটপাট করে। পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে আখাউড়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্বপন মিয়াকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী নয়াদিল গ্রামের বীর

মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদ বলেন, সহিদুল ইসলামের সঙ্গে এলাকার স্বপন মিয়া ও মতিন মিয়াসহ কিছু লোকজনের বিরোধ রয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় স্বপন মিয়া ও মতিন মিয়ার লোকজন সহিদুল ইসলামের বাড়িতে হামলা করে সবাইকে মারাত্মক মারধর করেছে। আমি ফিরাতে গেলে আমাকেও তারা থাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়ে মারতে আসে।

এ ব্যাপারে সহিদুল ইসলাম মেম্বার বলেন, হামলা মারধরের আমার ছেলের দোকানের টাকা পয়সা, ৯টি মোবাইল ফোন লুটে নিয়েছে। এছাড়া ঘরের মূল্যবান আসবাপত্র ভাংচুর করে লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি করেছে।

এ ব্যপারে জানতে চাইলে আখাউড়া থানার ওসি মোঃ মিজানুর রহমান বলেন খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে একজনকে আটক করেছে। বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

হাসান মাহমুদ পারভেজ/বার্তা বাজার/টি

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর